সিরাজগঞ্জে ক’রোনা ঝুঁ’কির মধ্যেই চলছে ঈদবাজার

প্রকাশিত: মে ৭, ২০২০ / ০৮:৫৮অপরাহ্ণ
সিরাজগঞ্জে ক’রোনা ঝুঁ’কির মধ্যেই চলছে ঈদবাজার

সিরাজগঞ্জের দক্ষিণাঞ্চলে ক’রো’না ঝুঁ’কি উপেক্ষা করে শুরু হয়েছে ঈদের কেনাকাটা। এতে তাঁত শিল্প ও যমুনা চরাঞ্চল অধ্যুষিত এলাকায় করোনা আ’ত’ঙ্ক বেড়েছে। ১০ মে থেকে সীমিত পরিসরে বিপণী বিতান খুলবে এমন খবর দেশজুড়ে ছড়িয়ে পড়ায় এ অবস্থা বলে স্থানীয় সচেতন মহল মনে করে।

বুধবার চৌহালী উপজেলার কেজি মোড়, বেতিল, এনায়েতপুর থানা সদর মার্কেট, বেলকুচি উপজেলার মুকুন্দগাতীর বেশকিছু দোকানে স্বাস্থ্যবিধি এবং ল’ক’ডাউন অমান্য করেই কাপড়ের দোকান খুলেছে।

সবচেয়ে বেশি ক্রেতার উপচেপড়া ভিড় দেখা গেছে ফুটপাতের কাপড়ের দোকানগুলোতে। মার্কেট বন্ধের সুযোগে তারা যাতায়াতের রাস্তা দখল করে বেচাকেনা করছে।

ক’রো’না বিস্তার রো’ধে চৌহালী, এনায়েতপুর ও বেলকুচি উপজেলাকে স্থানীয় প্রশাসনের গণবিজ্ঞপ্তিতে ল’ক’ডাউন ঘোষণা করা করা হয়েছে। তারপরও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর চোখ ফাঁ’কি দিয়ে বুধবার সকাল থেকে রীতিমতো বেচাবিক্রি শুরু করেছে বিভিন্ন মার্কেটের দোকানীরা।

এ সময় অধিকাংশ ক্রেতা ও বিক্রেতার মুখে মাস্ক কিংবা নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখার কোনো দৃশ্য চোখে পড়েনি। তৈরি পোশাক, থান কাপড়, জুতা ও কসমেটিকের দোকানগুলো ছিল নারী ক্রেতাদের দখলে।

সেখানে ছোট-বড় সবাইকে নিয়ে ঈদবাজার করছে বাসা-বাড়ির গৃহিণীসহ বিভিন্ন বয়সের ক্রেতারা। এনায়েতপুর ও মুকুন্দগাতির বেশ কয়েকটি দোকানে ক্রেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণে নানা রঙবেরঙের নতুন পোশাক আনা হয়েছে।

এ বিষয়ে নাম প্রকাশ না করার শর্তে বেলকুচির কয়েকজন কাপড় দোকানি বলেন, ঈদের মার্কেটে বিক্রি না করলে পরিবার-পরিজন নিয়ে চলা কষ্ট হয়ে যাবে। মধ্যবিত্তরা ত্রাণ সহায়তা চাইতে পারে না।

এ দিকে কেজি মোড় ও এনায়েতপুরে ঈদবাজার করতে আসা জেরিন সুলতানা ও রেবেকা খাতুন জানান, বাড়ির ছোট ছেলে-মেয়েদের ঈদের পোশাকের বায়না মেটাতে কিছু কিনতে এসেছিলাম। যদিও আমরা চেষ্টা করেছি নিরাপদ দূরত্ব বজায় রাখার কিন্তু দোকানগুলোতে ক্রেতার সংখ্যা অনেক বেশি হওয়ায় ঝুঁ’কি বেড়েছে।

বেলকুচি থানার ওসি আনোয়ারুল ইসলাম জানান, এলাকার অর্থনীতির কথা বিবেচনা করে নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখে কিছু অতি প্রয়োজনীয় দোকান খোলা রাখতে পারে। তবে স্বাস্থ্যবিধি না মানলে ব্যবস্থা নিতে পুলিশ নিয়মিত টহল দিচ্ছে।

চৌহালী ইউএনও দেওয়ান মওদুদ আহমেদ জানান, ল’ক’ডাউন চলমান আছে। এনায়েতপুরে ডিসি অফিস থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অ’ভি’যান পরিচালিত হবে। তবে চৌহালী সদরে এখনও কোনো কাপড়ের দোকানে বেচাকেনা শুরু হয়নি।

সুত্রঃ যুগান্তর

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন