কাতার প্রবাসীরা মহাবি’পাকে পড়লেন

প্রকাশিত: মে ৫, ২০২০ / ০১:০২পূর্বাহ্ণ
কাতার প্রবাসীরা মহাবি’পাকে পড়লেন

করো’না’ভা’ই’রাসের বিস্তার ঠেকাতে সবরকম চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে কাতার। এবার এক রুমে তিন থেকে চারজনের বেশি থাকার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে দেশটির সরকার।

নিষেধাজ্ঞার পর থেকেই অভিবাসীদের বাসায় বাসায় গিয়ে নিয়মিত অ’ভি’যান চালাচ্ছে কাতার প্রশাসন। এ ধরনের নিষেধাজ্ঞায় বিপাকে পড়েছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক বাংলাদেশি বলেন, ‘এ সময়ে এমনিতেই কাজ নেই। এটার জন্য শ্রমিকদের অনেক সমস্যা হচ্ছে’।

আরেক প্রবাসী বলেন, ‘এ দুর্যোগ মুহূর্তে কাজকর্ম কিছুই নেই। এখন রুম ভাড়া কিভাবে দেব? সরকারের এমন সিদ্ধান্তে খুব সমস্যায় পড়ে গেলাম’।

সরকারের এ ধরনের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে নেয়ার আহ্বান জানিয়েছেন কাতারস্থ ফটিকছড়ি সমিতির সাধারণ সম্পাদক ও কমিউনিটির নেতা আব্দুল মান্নান।

তিনি বলেন, ‘শ্রমিকদের দিকে তাকিয়ে রাষ্ট্রদূতকে কাতার সরকারের সঙ্গে কথা বলার জন্য আহ্বান জানাচ্ছি’।

২৫ লাখ জনসংখ্যার ছোট দেশটিতে ৪ বাংলাদেশিসহ মা’রা গেছেন ১২ জন। তিন হাজার বাংলাদেশিসহ আ’ক্রা’ন্ত হয়েছেন ১৬ হাজারের বেশি মানুষ। দেশটিতে ক’রো’না আ’ক্রা’ন্তের সংখ্যা ১৬ হাজার ছাড়িয়েছে। রমজানের শুরু থেকে আ’ক্রা’ন্তের সংখ্যা ক্রমেই বাড়ছে।

জনসংখ্যার অনুপাতে আ’ক্রা’ন্তের সংখ্যা বেশি হওয়ায় চরম আতঙ্কে আছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা। সোমবার (০৪ মে) নতুন করে আরও ৬৪০ জনসহ দেশটিতে মোট ১৬ হাজার ১৯১ জন ক’রো’না’ভা’ই’রাসে আ’ক্রা’ন্ত হয়েছেন।

দেশটিতে এখন পর্যন্ত এক লাখ ছয় হাজারের বেশি মানুষের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। এক হাজার ৮১০ জন সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরেছেন বলে জানিয়েছে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। হেলথ অথোরিটির তথ্য অনুযায়ী ৩২ ভাগ ভারতীয়, ২০ ভাগ নেপালি, ১৮ ভাগ বাংলাদেশি, ৬ ভাগ কাতারিসহ বিভিন্ন দেশের নাগরিক।

সুত্রঃ জাগো নিউজ২৪

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন