মালয়েশিয়াতে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান শর্তসাপেক্ষে খোলার অনুমতি

প্রকাশিত: মে ৪, ২০২০ / ০১:৩০পূর্বাহ্ণ
মালয়েশিয়াতে ব্যবসা প্রতিষ্ঠান শর্তসাপেক্ষে খোলার অনুমতি

চলমান মুভমেন্ট কন্ট্রোলজারির মধ্যেই শর্তসাপেক্ষে খুলে দেয়া হচ্ছে কিছু ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। শুক্রবার পহেলা মে দিবসের বিশেষ ভাষণে প্রধানমন্ত্রী তান সেরি মুহিউদ্দিন ইয়াসিন এ কথা জানান। প্রধানমন্ত্রীর এমন সিদ্ধান্তকে ধন্যবাদ জানিয়েছে প্রবাসীরা।

জানা গেছে, বাংলাদেশের কর্মীরা অধিকাংশই ম্যানুফ্যাকচারিং কন্সট্রাকশন, কৃষি, হোটেল রেস্তোরাঁ ও সার্ভিস সেক্টরে কাজ করে। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের ফলে দীর্ঘদিন কাজ বন্ধ থাকায় আয় রোজগারহীন হয়ে পড়েছে তারা।

যদিও ক’রো’নায় আ’ক্রা’ন্ত হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে তথাপি সরকার নির্ধারিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে কাজ করতে বাংলাদেশি কর্মীরা সচেতন রয়েছেন।

এদিকে হাইকমিশন থেকে কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলা হয়েছে, তারা যেন স্বাস্থ্যবিধি ও নিয়ম-কানুন মেনে চলে কারণ কাজ শুরু হলেও এমসিও বলবৎ থাকবে এবং নিয়ম-কানুন না মেনে চললে এমসিও ভ’ঙ্গ করার অ’প’রাধে শা’স্তি হতে পারে।

দেশটির মানব সম্পদ মন্ত্রী সারভানান এক বিবৃতিতে বলেছেন, ‘ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পুনরায় কার্যক্রম শুরু করার সময় নিয়োগকারী, কর্মচারীদের অবশ্যই স্বাস্থ্য পরীক্ষা কঠোরভাবে অনুসরণ করতে হবে’।

তিনি বলেন,কাজ করার সময় এবং দূরবর্তী সময়ে শরীরের তাপমাত্রা রেকর্ডিং, মুখের মুখোশ ব্যবহার, ঘন ঘন হাত ধোয়া এবং জনাকীর্ণ এলাকা এড়ানো যেমন প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থাগুলি নিয়োগকারীরা অবশ্যই নিশ্চিত করতে হবে।

পাশাপশি শ্রমিকদের নিরাপত্তা এবং স্বাস্থ্য সর্বদা অগ্রাধিকার পাবে এবং আমাদের স্বাস্থ্য ও অর্থনীতি উভয়ই শতাব্দীর অন্যতম বড় চ্যালেঞ্জ থেকে বাঁচতে সকল প্রচেষ্টা গ্রহণ করা উচিত বলে বলেন মানব সম্পদ মন্ত্রী এম সারাভানান।

এদিকে করো’না’ভা’ইরাস মোকাবিলায় বিশ্বকে চমকে দিয়েছে এশিয়ার দেশ মালয়েশিয়া। যদিও পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের মধ্যেই কমতে শুরু করেছে আ’ক্রা’ন্তের সংখ্যা।

ভা’ই’রাস মো’কা’বিলায় চলমান নিয়ন্ত্রণ আদেশ মুভমেন্ট কন্ট্রোল অর্ডার (এমসিও) চতুর্থবারের মতো চলছে। যা শেষ হওয়ার কথা রয়েছে চলতি মাসের ১২ মে।

সেইসঙ্গে মৃ’ত্যু’র হারও আগের মতো আর নেই। দেশটিতে আ’ত’ঙ্কের বদলে ফিরতে শুরু করেছে স্বস্তি। যেখানে প্রতিদিন দুই শ’ এর বেশি আ’ক্রা’ন্ত হতো সেখানে বর্তমানে আক্রান্ত কমে গেছে অনেকটাই।

তবে আগামীকাল থেকে চলমান মুভমেন্ট কন্ট্রোলজারির মধ্যেই শর্তসাপেক্ষে কিছু ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়া হলেও দেশটির আটটি প্রদেশে জারি থাকবে মুভমেন্ট কন্ট্রোল ওয়ার্ডার। এ আটটি প্রদেশ হচ্ছে, সাবা, সারওয়াক, কেডাহ, পিনাং, সেলাংগর, নেগরি সেম্বিলান ও কেলান্তান।

এছাড়া সোমবার থেকে মালয়েশিয়া ইমিগ্রেশনের পরিষেবা চালু হলেও ৬ মে মঙ্গলবার থেকে বিদেশি শ্রমিকরা তাদের ভিসা নবায়নের জন্য আবেদন করতে পারবেন বলে অভিবাসন সূত্রে জানা গেছে।

চলমান মুভমেন্ট কন্ট্রোলে কোয়ারেন্টাইনে থাকা অভিবাসীরা কর্মহীন হয়ে পড়ায় টানা ল’ক’ডাউনে অর্থ ও খাদ্য সংকটে থাকা প্রবাসীদের খাদ্য সহায়তা দিয়ে আসছেন জনহিতৈশীরা। এ সহায়তা চলমান রয়েছে।

সুত্রঃ জাগো নিউজ২৪

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন