নেত্রকোনায় গৃহবধূর লা’শ নিয়ে টানাটানি

প্রকাশিত: মে ৩, ২০২০ / ১০:০০অপরাহ্ণ
নেত্রকোনায় গৃহবধূর লা’শ নিয়ে টানাটানি

নেত্রকোনার আটপাড়া উপজেলায় স্বপ্না আক্তার (২৫) নামে এক গৃহবধূর লাশ নিয়ে দুটি পরিবারে বি’রোধ ও উ’ত্তেজনা চলছে। গৃহবধূ আত্ম’হ’ত্যা করলে লা’শ দা’ফন করা হয়েছিল স্বামীর বাড়িতে। সেখান থেকে তুলে নিয়ে গেছেন পিতার বাড়ির লোকজন।

ঘটনাটি আটপাড়ার স্বরমশিয়া গ্রামের। স্থানীয় সূত্র জানায়,আটপাড়ার স্বরমশিয়া গ্রামে জজ মিয়ার ছেলে জহিরুল ইসলাম পিন্টুর সাথে পাঁচবছর আগে বিয়ে হয়েছিল উপজেলার বানিয়াজান ইউনিয়নের নবাবপুর গ্রামের নওয়াব আলীর মেয়ে স্বপ্না আক্তারের।

প্রেম করে বিয়ে হলেও দাম্পত্য জীবনে তাদের ক’লহ ছিল। গত শুক্রবার দুপুরে স্বপ্না আক্তার স্বামীর বাড়িতেই কীটনা’শক পান করেন। তাকে আটপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

পরে শারীরিক অবস্থার অবনতি ঘটলে স্থানান্তর করা হয় নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতাল ও পরে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার ভোরে স্বপ্না মারা যান।

লা’শের ম’য়নাতদন্ত শেষে শনিবার রাত ৮টার দিকে পুলিশের উপস্থিতিতে স্বামীর বাড়িতে জানাজা শেষে স্বপ্নার লা’শ দা’ফন করা হয়। কিন্তু বিষয়টি মেনে নিতে পারেনি স্বপ্নার পরিবার। রাতেই শতাধিক লোক নিয়ে স্বপ্নার অভিভাবকরা কবর থেকে লা’শ তুলে নিয়ে যান নবাবপুরে।

সেখানে মায়ের ক’বরের পাশে তাকে দা’ফন করা হয়। উ’ত্তে’জনাকর এ পরিস্থিতিতে রবিবার নেত্রকোনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মুহাম্মদ ফখরুজ্জামান জুয়েল, আটপাড়া থানার ওসি মো. আলী হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

নেত্রকোনার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (অপরাধ) মুহাম্মদ ফখরুজ্জামান জুয়েল বলেন,‘আমি গৃহবধূর স্বামী ও বাবার বাড়ি পরিদর্শন করেছি। এব্যাপারে তদন্তপূর্বক যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।’

সুত্রঃ কালের কন্ঠ

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন