আমাকে বাঁচিয়ে রেখেছিল লিটার লিটার অক্সিজেন : ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত: মে ৩, ২০২০ / ০৬:২৬অপরাহ্ণ
আমাকে বাঁচিয়ে রেখেছিল লিটার লিটার অক্সিজেন : ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী

প্রাণঘা’তী করো’নায় আ’ক্রা’ন্ত হয়ে সাক্ষাৎ মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরেছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। প্রায় মাসখানেক জমে-মানুষের টানাটানি শেষে যু’দ্ধে জয়ী হয়ে নিজের গদিতে বসেছেন জনসন। এবার জানালেন নিজের করো’না’যু’দ্ধের ভয়াবহ সেই দিনের অভিজ্ঞতা।

রবিবার ‘দ্য সান’ পত্রিকাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বর্ণনা করেছেন হাসপাতালে তাঁর চিকিৎসা সমস্ত খুঁটিনাটি বিষয়। কিভাবে তাঁর জীবন বাঁচাতে চিকিৎসক, স্বাস্থ্যকর্মীরা দিনরাত কাজ করে গেছেন, সেই কৃতিত্বের কথাও গোপন করেননি। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর কথায়, ‘আমাকে বাঁচিয়ে রাখতে লিটার লিটার অক্সিজেন দিতে হয়েছিল।’ সব কিছুর জন্য ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী নিজেকে ‘ভাগ্যবান’ বলে মনে করছেন।

গত ২৬ মার্চ। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর করোনা রিপোর্ট পজিটিভ, এই খবর একেবারে বিদ্যুতের গতিতে ছড়িয়ে পড়ে বিশ্বজুড়ে। রিপোর্ট হাতে দেশবাসীর উদ্দেশে ঘোষণা করে তিনি নিজেই চলে যান কোয়ারেন্টাইনে। কিন্তু তাতে লাভ হয়নি বিশেষ।

গুরুতর অসুস্থতা নিয়ে কয়েকদিন পরই ভর্তি হন লন্ডনের সেন্ট থমাস হসপিটালে। সেখানে আইসিইউ-তে তাঁকে ভর্তি নিয়ে শুরু হয় চিকিৎসা। শুরু হয় করোনা ভাইরাসের বিরুদ্ধে কঠিন এক লড়াই।

‘দ্য সান’ পত্রিকাকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বরিস জনসন সেই কঠিন দিনগুলির কথাই বলেছেন। বরিস বলছেন, তাঁর থেকে যেন অন্যদের সং’ক্র’মণ না হয়, একথা বারবার তিনি চিকিৎসকদের বলেছিলেন। আরো একটি ইচ্ছার কথাও প্রকাশ করেছিলেন ব্রিটেনের রাষ্ট্রপ্রধান।

এই দুর্দিন কাটিয়ে তাঁর দেশ যেন আবার উঠে দাঁড়ায়। তাঁর কথায়, ‘সত্যিই একটা কঠিন সময় ছিল। আমি তা অস্বীকার করতে পারি না। কীভাবে যে আজ ফিরে এসেছি…। কয়েকদিনের মধ্যে আমার শারীরিক অবস্থার এতটা অবনতি হয়ে গিয়েছিল!’

বরিস এও জানিয়েছেন যে চিকিৎসা পদ্ধতি তাঁর শরীরে কাজ না করলে, তার বিকল্পও ভেবে রেখেছিলেন চিকিৎসকরা। সেই স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে নিজেই প্রায় শি’উরে উঠছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী। দীর্ঘদিনের জট ব্রেক্সিট যিনি অনায়াসে কাটিয়ে ফেলতে পেরেছিলেন, সেই রাষ্ট্রপ্রধান করো’না’ভা’ই’রাসের হামলার কাছে যেন নিতান্তই অসহায়।

তবে সেই কঠিন সময় পেরিয়ে তিনি স্বাভাবিক জীবনে ফিরে এসেছেন তো বটেই, সঙ্গে সদ্যোজাত শিশুপুত্র। এ যেন যুদ্ধজয়ের পুরস্কার। গত বুধবার বরিসের বান্ধবী ক্যারি সাইমন্ডস এক পুত্রসন্তানের জন্ম দিয়েছেন।

তার নাম রাখা হয়েছে – উইলফ্রেড লরি নিকোলাস জনসন। এত বড় নামের পিছনে কিন্তু ইতিহাস আছে। পরিবার সূত্রে খবর, এই শিশুর নামের মধ্যেই রয়েছেন সেই দুই চিকিৎসক, যাঁরা প্রাণপণ লড়াই করে বরিস জনসনকে স্বাভাবিক জীবন ফিরিয়ে দিয়েছেন।

সূত্র- ডেইলি সান।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন