চিকিৎসকসহ মিটফোর্ড হাসপাতালের ৪২ জন আ’ক্রান্ত

প্রকাশিত: এপ্রি ২০, ২০২০ / ১২:২৪পূর্বাহ্ণ
চিকিৎসকসহ মিটফোর্ড হাসপাতালের ৪২ জন আ’ক্রান্ত

ঢাকার স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ ও মিটফোর্ড হাসপাতালের চিকিৎসকসহ স্বাস্থ্যকর্মীদের করোনা’ভা’ইরাসে আ’ক্রা’ন্তের সংখ্যা বেড়ে ৪২ জন হয়েছে। এর মধ্যে চিকিৎসকই ২৩ জন।

এক রোগীর কারণে তাদের মধ্যে সং’ক্র’মণ ঘটেছে বলে মনে করা হচ্ছে। ওই রোগী নারায়ণগঞ্জ থেকে এলেও মিথ্যা তথ্য দিয়েছিলেন বলে জানিয়েছিলেন হাসপাতালের চিকিৎসকরা।

হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল কাজী মো. রশিদ উন নবী আজ রোববার রাতে বলেন, বৃহস্পতিবার ১২ জন ও শুক্রবার ১০ জন আ’ক্রান্ত হয়েছিলেন।

এর মধ্যে সার্জারি ও গাইনি বিভাগের ১০ চিকিৎসক, আট নার্সসহ ২২ জন করো’না’ভা’ইরাসে আ’ক্রা’ন্ত হয়েছিলেন। পরের দিন ৬৯ জনের নমুনা সংগ্রহ করে পরীক্ষা করালে ৬৯ জনেরই কোভিড-১৯ নেগেটিভ আসে।

আজ রোববার আরো ১৩ জন চিকিৎসক ও সাতজন নার্সসহ স্বাস্থ্যকর্মী আ’ক্রা’ন্ত হয়েছেন। এ নিয়ে মোট ৪২ জন আ’ক্রা’ন্ত হয়েছেন। যার মধ্যে ২৩ জনই চিকিৎসক ও একজন আনসার।

এ বিষয়ে গত তিন দিন ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করছে। প্রতিবেদনে বলা পরিচালকের মন্তব্যে বলা হয়েছে, গত শনিবার মিটফোর্ডে সার্জারি বিভাগে একজন রোগী ভর্তি হন। জরুরি ওই রোগীর অ’স্ত্রোপচারে যারা যুক্ত ছিলেন, তারা সবাই আ’ক্রা’ন্ত হয়েছেন বলে জানান তিনি।

পরিচালক ব্রিগেডিয়ার রশীদ বলেন, ‘মূলত ওই রোগীর মিথ্যা তথ্যের কারণেই চিকিৎসকরা বেশি আ’ক্রা’ন্ত হয়েছেন, এখন সেটা একজনের কাছ থেকে অন্যজনে ছড়াচ্ছে। আর আমরাই বা কী করব, একজন রোগীর ইমার্জেন্সি অপারেশনের দরকার হলে তো অপারেশন করতে হবে, না হলে রাস্তায় মারা যাবে।’

নাম প্রকাশ না করার শর্তে হাসপাতালের একাধিক চিকিৎসক বলেন, ‘গতকাল ৬৯ জনের কোভিড-১৯ নেগেটিভ রেজাল্ট এসেছে, আমাদের মধ্যে স্বস্তি ছিল। তবে এখন আতঙ্ক আরো বেড়েছে।’

কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত চিকিৎসকদের সংখ্যা বাড়ায় কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন কি না, জানতে চাইলে হাসপাতালের পরিচালক বলেন, ‘যারা আ’ক্রা’ন্ত হচ্ছেন তাদের আইসোলেশনে পাঠাচ্ছি, আর তাদের সঙ্গে কাজে যুক্ত ছিলেন এমনদের কো’য়ারেন্টিনে পাঠানো হচ্ছে।’

সুত্রঃ এনটিভি

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন