স্ত্রী হ’ত্যা’র পর নিজেই ৯৯৯-এ ফোন করেছিলেন স্বামী

প্রকাশিত: এপ্রি ১৫, ২০২০ / ১০:০৮অপরাহ্ণ
স্ত্রী হ’ত্যা’র পর নিজেই ৯৯৯-এ ফোন করেছিলেন স্বামী

ফেনীতে ফেসবুক লাইভে এসে স্ত্রীকে কু’পি’য়ে হ’ত্যা’র পর স্বামী ৯৯৯-এ নিজেই ফোন করে ঘটনা জানান এবং পুলিশী সহায়তা চান।

বুধবার দুপুর সোয়া ১টার দিকে টুটুল ভূঁইয়া নামের একটি ফেসবুক আইডি থেকে লাইভে এসে এমন নৃ’শং’স খু’নে’র অবতারণা করেন ওই যুবক।

দুপুর ১টা ৩৫ মিনিটে বাংলাদেশ পুলিশ পরিচালিত ‘জাতীয় জরুরি সেবা ৯৯৯’একজন কলার ফোন করে জানান, তিনি তার স্ত্রীকে খু’ন করেছেন। তিনি খুব স্বাভাবিক, অনুত্তেজিত কণ্ঠে কথাগুলো বলছিলেন।

তিনি জানান, তার স্ত্রীর মৃ’তদেহ তার সামনে পড়ে আছে এবং ভেতর থেকে বাসার দরজা লাগানো থাকায় কেউ ঢুকতে পারছিল না।

তিনি আরও জানান, তার নাম টুটুল ভূঁইয়া এবং ফেনী পৌরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের বাড়াঈপুর এলাকায় তার বাসা। তিনি ৯৯৯-এর কাছে তার ঠিকানায় পুলিশ পাঠানোর অনুরোধ জানান।

ঘটনার আকস্মিকতা সামলে নিয়ে ৯৯৯-এর কল টেকার ফেনী সদর থানার ডিউটি অফিসারকে ফোন করে ঘটনাটি জানান এবং কলার টুটুল ভূঁইয়ার সঙ্গে কথা বলিয়ে দেন। কলার টুটুল ভূঁইয়া খুব স্বাভাবিক কণ্ঠে ডিউটি অফিসারকে খু’নে’র ঘটনাটি বলেন এবং তার বাসার ঠিকানা বলেন।

ফেনী সদর থানার একটি পেট্রল টিম অবিলম্বে ঘটনাস্থলে যায় এবং হ’ত্যা’কাণ্ডের শি’কা’র তাহমিনার (২৮) রক্তাক্ত মৃ’ত’দেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য প্রেরণ করা হয়। অভিযুক্ত কলার টুটুল ভূঁইয়া (৩৬)কে আ’ট’ক করা হয়।

পারিবারিক ক’ল’হের জের ধরে এই হ’ত্যা’কাণ্ড ঘটে বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। এ সংক্রান্তে ফেনী সদর থানায় একটি মা’ম’লা রুজু করা হয়েছে। জাতীয় জরুরি সেবা সেন্টারে ইন্সপেক্টর আনোয়ার সাত্তার প্রেরিত এক বার্তায় এ সব তথ্য জানা যায়।

সুত্রঃ যুগান্তর

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন