মারা গেলেন সংঘর্ষে পা কে’টে নেয়া মোবারক

প্রকাশিত: এপ্রি ১৫, ২০২০ / ১২:১২অপরাহ্ণ
মারা গেলেন সংঘর্ষে পা কে’টে নেয়া মোবারক

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের থানাকান্দি গ্রামে দুই পক্ষের সং’ঘর্ষের ঘটনায় পা কে’টে নেয়া সেই মোবারক মিয়া (৪৫) মা’রা গেছেন।

তিনদিন মৃ’ত্যুর সঙ্গে ল’ড়ে মঙ্গলবার (১৪ এপ্রিল) দিবাগত রাত দেড়টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মা’রা যান। নিহত মোবারক থানাকান্দি গ্রামের মধু মিয়ার ছেলে।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (প্রশাসন ও অপরাধ) মুহাম্মদ আলমগীর হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে গত ১২ এপ্রিল থানাকান্দি গ্রামে আধি’পত্য বিস্তার নিয়ে বিরোধের জেরে কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান জিল্লুর রহমান ও থানাকান্দি গ্রামের সর্দার আবু কাউসার মোল্লার সমর্থকরা দেশীয় অ’স্ত্র নিয়ে সং’ঘ’র্ষে জড়ান। কয়েক দফায় চলা ওই সং’ঘ’র্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ৩০ জন আহত হন।

সং’ঘ’র্ষ চলাকালে জিল্লুর রহমানের সমর্থক মোবারক মিয়ার এক পা কে’টে নিয়ে ‘জয় বাংলা’ স্লোগান দিয়ে গ্রামে আনন্দ মিছিল করেন আবু কাউসার মোল্লার সমর্থকরা।

মিছিল থেকে পায়ের বদলে মা’থা কে’টে নিয়ে আসার কথাও বলা হয়। এছাড়াও সংঘ’র্ষের সময় বেশ কয়েকটি ঘর-বাড়িতে হা’মলা চালি’য়ে ভা’ঙচুর ও অ’গ্নিসং’যোগ করা হয়।

সংঘ’র্ষের ঘটনায় পুলিশ দুই পক্ষের ‘প্রধান হোতা’ জিল্লুর রহমান ও আবু কাউসার মোল্লাসহ ৪২ জনকে আটক করেছে। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মা’মলা দায়ের করেছে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন