অকাল মৃত্যুর ঝুঁকি কমে নিয়মিত হাঁটলে

প্রকাশিত: মার্চ ৩০, ২০২০ / ১২:১২অপরাহ্ণ
অকাল মৃত্যুর ঝুঁকি কমে নিয়মিত হাঁটলে

সকালে হাঁটাহাঁটি শরীরের জন্য খুবই উপকারী। আর শারীরিক পরিশ্রমের সবচেয়ে সহজ পন্থা হলো হাঁটা। নিয়ম করে সকালে বা বিকালে হাঁটতে পারেন। হাঁটা শরীরের রোগ প্রতিরোধ করে আপনাকে সুস্থ রাখবে।

গবেষকরা বলেন, যত বেশি হাঁটবেন ততই আপনার ‘স্টেপ কাউন্ট’ বাড়বে আর কমবে অকাল মৃত্যুর ঝুঁকি।

‘জেএএমএ’ শীর্ষক জার্নালে হাঁটার ওপর এই গবেষণা প্রকাশিত হয়। গবেষকরা বলেন, হাঁটার গতি যেমনই হোক, একদিনে একজন মানুষের ‘স্টেপ কাউন্ট’য়ের সংখ্যার সঙ্গে তার মৃত্যুঝুঁকির শক্ত সম্পর্ক আছে।

গবেষণার প্রধান যুক্তরাষ্ট্রের ‘ন্যাশনাল ক্যান্সার ইনস্টিটিউটের (এনসিআই) পেদ্রো সেইন্ট মরিস বলেন, হাঁটা শরীরের জন্য খুবই উপকারী– এ কথা আমাদের অনেকের জানা। তবে ঠিক কতগুলো ‘স্টেপ কাউন্ট’ মৃত্যুর ঝুঁকি কমাতে পারে তা আমরা অনেকেই জানি না।

তিনি বলেন, কতটুকু গতিতে হাঁটা জরুরি তা আমাদের অজানা ছিল। এ বিষয়টি বিস্তারিত জানতে এই গবেষণা পরিচালনা করা হয়। এই গবেষণা হাঁটার উপকারিতা জানাবে ও সাধারণ মানুষকে সঠিকভাবে হাঁটতে সাহায্য করবে। আর প্রযুক্তিপণ্যগুলো থেকে পাওয়া স্টেপ কাউন্টয়ের যথাযথ প্রয়োগ তারা করতে পারবে।

এর আগেও হাঁটার ওপর গবেষণা চালানো হয়েছে। এ গবেষণায় অংশগ্রহণকারীরা ছিলেন বয়স্ক ও দীর্ঘমেয়াদি রোগে আক্রান্ত।

এই গবেষণায় অংশ নেন ৪০ ও তদূর্ধ্ব বয়সের ৪ হাজার ৮০০ মানুষ। ২০০৩ থেকে ২০০৬ সালের মধ্যে প্রত্যেক অংশগ্রহণকারী সর্বোচ্চ সাত দিন ‘অ্যাক্সেলেরোমিটার’ পরিধান করেছেন।

২০১৫ সাল থেকে এই অংশগ্রহণকারীদের মৃত্যুর হার বিবেচনায় রাখা হয় ‘ন্যাশনাল ডেথ ইনডেক্স’য়ের সাহায্যে।

মৃত্যুর হার, ‘স্টেপ কাউন্ট’ ও হাঁটার গতি হিসাবে করে তাদের মধ্যকার সম্পর্ক চিহ্নিত করেন গবেষকরা। এ গবেষণায় বিবেচনায় রাখা হয় ‘ডেমোগ্রাফিক অ্যান্ড বিহেভিওরাল রিস্ক ফ্যাক্টর’, ‘বডি ম্যাস ইনডেক্স’। এ ছাড়া গবেষণার শুরুতে তাদের স্বাস্থ্যগত অবস্থাও বিবেচনায় রাখা হয়।

গবেষণায় দেখা যায়, দিনে চার হাজার ‘স্টেপ কাউন্ট’য়ের তুলনায় আট হাজার ‘স্টেপ কাউন্ট’ মৃত্যুর ঝুঁকি কমিয়ে আনে ৫১ শতাংশ। একইভাবে ১২ হাজার ‘স্টেপ কাউন্ট’য়ে মৃত্যুর ঝুঁকি কমবে ৬৫ শতাংশ। তবে গবেষকরা হাঁটার গতির সঙ্গে মৃত্যুর ঝুঁকির কোনো সম্পর্ক খুঁজে পাননি।

নারী-পুরুষ সবার ক্ষেত্রেই একই ফল প্রযোজ্য। আর হৃদরোগ ও ক্যান্সারে মৃত্যুর ঝুঁকি আরও বেশিমাত্রায় কমবে বলে দাবি গবেষকদের।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন