সাজা ছয় মাস স্থগিত করে খালেদা জিয়াকে মুক্তির সিদ্ধান্ত : আইনমন্ত্রী

প্রকাশিত: মার্চ ২৪, ২০২০ / ০৬:০৪অপরাহ্ণ
সাজা ছয় মাস স্থগিত করে খালেদা জিয়াকে মুক্তির সিদ্ধান্ত : আইনমন্ত্রী

সাজা ছয় মাসের জন্য স্থগিত করে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে শর্ত সাপেক্ষে মুক্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। আজ মঙ্গলবার বিকেলে গুলশানে নিজের বাসভবনে এক সংবাদ সম্মেলনে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক এই তথ্য জানিয়েছেন।

এ সময় আইনমন্ত্রী বলেন, ‘ফৌজদারি কার্যবিধির ৪০১ ধারা অনুযায়ী খালেদা জিয়ার দণ্ড ছয় মাসের জন্য স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। খালেদা জিয়ার পরিবারের পক্ষ থেকে দণ্ড মওকুফ করার জন্য আবেদন করা হয়েছে। এবং খালেদা জিয়ার পরিবারের পক্ষ থেকে তিন সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে মুক্তির জন্য অনুরোধ করেছেন।’

‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাকে দায়িত্ব দিয়েছেন আইনগত বিষয় খতিয়ে দেখে মতামত দেওয়ার জন্য। আমরা আইনি বিষয়গুলো খতিয়ে দেখে দণ্ড স্থগিত করে মুক্তির পক্ষে মতামত দিয়েছি।’

‘বয়স বিবেচনায়, মানবিক কারণে তাঁকে মুক্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে’, যোগ করেন আইনমন্ত্রী।

২০১৮ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলায় পাঁচ বছরের কারাদণ্ডাদেশ পান খালেদা জিয়া। আপিলের পর হাইকোর্টে তা বেড়ে ১০ বছর সাজা হয়। একই বছরের ২৯ অক্টোবর জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় খালেদা জিয়াকে সাত বছরের সশ্রম কারাদণ্ডাদেশ দেন। একই সঙ্গে তাঁকে ১০ লাখ টাকা জরিমানা, অনাদায়ে আরো ছয় মাসের কারাদণ্ডাদেশ দেওয়া হয়।

বর্তমানে খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বিএসএমএমইউ) প্রিজন সেলে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। স্বাস্থ্যগত অবস্থার অবনতির কথা উল্লেখ করে তাঁর পরিবারের পক্ষ থেকে এ পর্যন্ত দুই দফায় জামিনের জন্য আবেদন করা হয়েছে।

সবশেষ গত ২৭ ফেব্রুয়ারি জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন খারিজ করে দিয়েছিলেণ হাইকোর্ট। এরপর পরিবারের সদস্যরা হাসপাতালে খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করে তাঁর স্বাস্থ্যের কথা বিবেচনা করে মানবিক কারণে মুক্তির আবেদন জানান। এই অবস্থার মধ্যেই আজ তাঁর মুক্তির সিদ্ধান্তের কথা জানালেন আইনমন্ত্রী।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া কখন মুক্তি পাবেন এমন প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘মুক্তির বিষয়ে সব কাগজপত্র এরই মধ্যে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে পৌঁছানো হয়েছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বাকি প্রক্রিয়া সম্পন্ন করে মুক্তির ব্যবস্থা করবে।’

মুক্তি পাওয়ার পর খালেদা জিয়া কোথায় থাকবেন এমন প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘তিনি তাঁর বাসায় থাকবেন। তিনি স্বাধীনভাবে যেকোনো জায়গায় চিকিৎসা নিতে পারবেন।’

বিদেশে চিকিৎসা করতে পারবেন কি না এমন প্রশ্নের জবাবে আনিসুল হক বলেন, ‘এই মুহূর্তে বিদেশ যাওয়ার মানে সুইসাইড করার শামিল।’

ছয় মাস পর কি দণ্ড স্থগিতে সময় বাড়ানো হবে- এমন প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী বলেন, ‘ছয় মাস আগে শেষ হোক তারপর পরের বিষয় বিবেচনা করা হবে।’

সূত্র : এনটিভি অনলাইন

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন