সিলেটের সেই নারী করোনায় আক্রান্ত ছিলেন না : আইইডিসিআর

প্রকাশিত: মার্চ ২৪, ২০২০ / ০২:০৮অপরাহ্ণ
সিলেটের সেই নারী করোনায় আক্রান্ত ছিলেন না : আইইডিসিআর

সিলেটে করোনাভাইরাসের উপসর্গ নিয়ে মারা যাওয়া যুক্তরাজ্যফেরত সেই নারীর করোনা পরীক্ষায় ফলাফল নেগেটিভ এসেছে। গতকাল সোমবার রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করেন সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা এ এস এম আলমগীর।

এর আগে ১০ দিন ধরে জ্বর, সর্দি, কাশির সঙ্গে শ্বাসকষ্টজনিত সমস্যায় ভোগার পর গত ২০ মার্চ ওই নারী শহীদ শামসুদ্দিন আহমদ হাসপাতালে ভর্তি হন। এরপর ২২ মার্চ রোববার ভোররাতে হাসপাতালের আইসোলেশনে থাকা অবস্থায় ৬১ বছর বয়সী ওই নারীর মৃত্যু হয়।

মারা যাওয়ার পর তাঁর মুখের লালাসহ অন্যান্য নমুনা রোববার সংগ্রহ করে আইইডিসিআর। পরে ওইদিনই দুপুরে তাঁকে সংক্রমণ বিধি অনুযায়ী নগরীর মানিকপীরের টিলা কবরস্থানে দাফন করা হয়। বার্তা সংস্থা ইউএনবি এ খবর জানিয়েছে।

এর আগে গত ৪ মার্চ লন্ডন থেকে দেশে ফেরেন ওই নারী। তিনি সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর এলাকার বাসিন্দা বলে জানা গেছে। একই সঙ্গে মারা যাওয়া সেই নারীর পরিবারের সবাইকে বাধ্যতামূলক হোমকোয়ারেন্টিনে পাঠায় জেলা প্রশাসন।

গত ১০ মার্চ থেকে ২৩ মার্চ সোমবার পর্যন্ত সিলেট জেলায় ৮০০ জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। তাদের মধ্যে বেশিরভাগই প্রবাসী ও তাদের স্বজন।

অন্যদিকে ১৭ জনের হোম কোয়ারেন্টিনের মেয়াদ অর্থাৎ ১৪ দিন শেষ হওয়ায় সোমবার তাদের ছাড়পত্র দেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন সিলেটের সিভিল সার্জন প্রেমানন্দ মণ্ডল। তিনি বলেন, ‘যাঁরাই হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন, তাঁদের নিয়মিত পর্যবেক্ষণ করা হয়েছে। এ ছাড়া যাঁরা হোম কোয়ারেন্টিনের মেয়াদ শেষ করেছেন, তাঁদের ছাড়পত্র দিয়ে দেওয়া হয়েছে।’

বাংলাদেশে সোমবার পর্যন্ত করোনাভাইরাসে ৩৩ জন আক্রান্তের তথ্য জানিয়েছে সরকার। যাদের মধ্যে তিনজনের মৃত্যু হয়েছে এবং পাঁচজন সুস্থ হয়েছেন। বৈশ্বিক মহামারি ‍করোনাভাইরাসে (কোভিড-১৯) আক্রান্ত হয়ে মঙ্গলবার পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে প্রাণহানির সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৬ হাজার ৫১৫ জনে।

বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের সর্বশেষ পরিসংখ্যান জানার ওয়েবসাইট ওয়ার্ল্ডোমিটারের তথ্য অনুযায়ী, নভেল করোনাভাইরাসে এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন বিশ্বের ৩ লাখ ৭৮ হাজার ৯৬৫ জন। এদের মধ্যে বর্তমানে দুই লাখ ৬০ হাজার ৩৮১ জন চিকিৎসাধীন এবং ১২ হাজার ৬২ জন আশঙ্কাজনক অবস্থায় রয়েছে।

এ ছাড়া করোনাভাইরাস আক্রান্ত এক লাখ ১৮ হাজার ৫৮৪ জনের মধ্যে এক লাখ দুই হাজার ৬৯ জন (৮৬ শতাংশ) সুস্থ হয়ে উঠেছে এবং ১৬ হাজার ৫১৫ জন (১৪ শতাংশ) রোগী মারা গেছে। বাংলাদেশসহ বিশ্বের ১৯৫টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস।

সূত্র : যুগান্তর

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন