পর্যটক শূন্য কক্সবাজার সমুদ্রতীরে ডলফিনের সাঁতার

প্রকাশিত: মার্চ ২৪, ২০২০ / ১২:০০অপরাহ্ণ
পর্যটক শূন্য কক্সবাজার সমুদ্রতীরে ডলফিনের সাঁতার

করোনা আতংকে দিন কাটছে দেশবাসীর! জরুরি সব সেবা ছাড়া ৪ এপ্রিল পর্যন্ত বন্ধ সবকিছু! বন্ধ করা হয়েছে সব পর্যটন স্পট।

যে কারণে পর্যটক শূন্য পৃথিবীর বৃহত্তম সমুদ্র সৈকত কক্সবাজার। যেখানে সবচেয়ে বেশি ভীড় হয় দেশ-বিদেশের পর্যটকদের। কিন্তু এই জনমানবহীন সমুদ্র সৈকতে যেন প্রাণ ফিরে পেয়েছে সামুদ্রিক প্রাণীরা!

তীরের পাশেই দেখা মিলছে ডলফিনের! যা রীতিমতো অবাক করার মতোই। সমুদ্র সৈকতের জনবহুল পয়েন্টগুলোর তীরে দাড়িয়ে সে দৃশ্য উপভোগ করছেন সেখানে কর্তব্যরত স্থানীয়রা!

করোনা-মহামারি প্রকট হচ্ছে, গতি রোধ এখনো সম্ভব: ডব্লিউএইচও

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) সতর্ক করে দিয়ে বলেছে, করোনা মহামারি প্রকট আকার ধারণ করছে। তবে সংস্থার প্রধান টেড্রস অ্যাডহানম গেব্রেইয়েসুস এও বলেছেন, এখনো এর গতি রোধ করা সম্ভব। খবর বিবিসির।

চীনের হুবেই প্রদেশের উহানে গত বছরের ডিসেম্বর মাসে প্রাদুর্ভাব হয় করোনা ভাইরাসের। এখন পর্যন্ত এ ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা তিন লাখ ছাড়িয়েছে। প্রথম শনাক্ত হওয়ার পর এক লাখ রোগী শনাক্ত হতে সময় লেগেছিল ৬৭ দিন। পরবর্তী এক লাখ রোগী শনাক্ত হয় ১১ দিনে। আর মাত্র চার দিনে পরের এক লাখ রোগী শনাক্ত হয়।

ডব্লিউএইচও প্রধান বিশ্বের বিভিন্ন দেশের কাছে পরীক্ষার বিষয়টির ওপর প্রবলভাবে জোর দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। টেড্রস বলেন, ‘আমরা কী করছি সেটাই সবচেয়ে বড়। রক্ষণাত্মক খেললে ফুটবল খেলায় জয়ী হওয়া যায় না। আক্রমণও করতে হবে।’ ফিফা প্রেসিডেন্ট জিয়ান্নি ইনফান্তিনোর সঙ্গে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন ডব্লিউএইচও প্রধান । ফুটবলারদের নিয়ে ‘কিক আউট করোনাভাইরাস’ নামের এক কর্মসূচির উপলক্ষে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

ড. টেড্রস বলেন, মানুষকে ঘরে থাকতে বলা বা সামাজিক দূরত্বের মতো বিষয়গুলো এ ভাইরাসের সংক্রমণ রোধে গুরুত্বপূর্ণ নিঃসন্দেহে। তবে এসব পন্থা ট্রেডসের মতে, ‘রক্ষণাত্মক উপায় আর করোনার বিরুদ্ধে জয়ী হতে এসব কাজ করবে না।’

ডব্লিউএইচও প্রধান বলেন, ‘জিততে হলে আক্রমণাত্মক হতে হবে এবং কৌশলে ভাইরাসকে আঘাত করতে হবে।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে স্বাস্থ্য কর্মীদের করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেন ড. টেড্রস। তিনি মনে করেন, পারসোনাল প্রোটেক্টিভ ইকুইপমেন্ট (পিপিই) না থাকার কারণেই এমনটা ঘটেছে। টেড্রস বলেন, নিরাপদে থাকলেই স্বাস্থ্য কর্মীরা তাদের কাজটা ভালোভাবে করতে পারবেন।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন