‘হিজবুল্লাহর ক্ষেপণাস্ত্রের আওতায় পুরো ইসরাইল’

পুরো ইসরাইল নিজেদের ক্ষেপণাস্ত্রের আওতায় রয়েছে দাবি করে লেবাননভিত্তিক প্রতিরোধ আন্দোলন হিজবুল্লাহর মহাসচিব হাসান নাসরুল্লাহ বলেছেন, হিজবুল্লাহর সঙ্গে কোনো রকমের সংঘাতে জড়ালে ইসরাইলের অস্তিত্ব মুছে যাবে। ২০০৬ সালে ইহুদিবাদী ইসরাইলের সঙ্গে হিজবুল্লাহর যুদ্ধের ত্রয়োদশ বার্ষিকী উপলক্ষে শুক্রবার টেলিভিশনে দেয়া ভাষণে এ দাবি করেন তিনি।

হিজবুল্লাহ আগের যেকোনো সময়ের চেয়ে এখন আরও বেশি শক্তিশালী দাবি করে হাসান নাসরুল্লাহ বলেন, পশ্চিমাদের ব্যাপক নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও আমরা আগের চেয়ে এখন অনেক সক্ষমতা অর্জন করেছি।

তিনি বলেন, এক সময় আমরা বলতাম হিজবুল্লাহ ইসরাইলের দক্ষিণাঞ্চলীয় নগরী হাইফাতে আঘাত হানতে সক্ষম। আজ আমরা বলতে পাারি যে, এইলাতের দক্ষিণেও যদি ইসরাইলের অস্তিত্ব থাকে তাহলে আমরা সেখানে হামলা চালাতে পারি। প্রকৃতপক্ষে পুরো ইসরাইল এখন আমাদের ক্ষেপণাস্ত্রের আওতায় রয়েছে।

হিজবুল্লাহ মহাসচিব আরও বলেন, আমাদের কাছে এখন বিপুল সংখ্যক ক্ষেপণাস্ত্র রয়েছে যা নিখুঁতভাবে আঘাত হানতে সক্ষম; এমন ক্ষেপণাস্ত্র ২০০৬ সালে আমাদের হাতে ছিল না। এছাড়া, আমাদের কাছে বহু সংখ্যক শক্তিশালী ড্রোন রয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০০৬ সালে দুই ইসরাইলি সেনাকে ধরে নিয়ে এসেছিল হিজবুল্লাহ যোদ্ধারা। এর পরই ইসরাইলের সঙ্গে যুদ্ধ বেধে যায় সংগঠনটির। এতে প্রায় এক হাজার ৩০০ লোক নিহত হন। ওই যুদ্ধে ইসরাইল পিছু হটেছিল বলে দাবি হিজবুল্লাহর।

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত