বড় জয়ে শুরু টি-২০ সিরিজ

প্রকাশিত: মার্চ ৯, ২০২০ / ১০:২৫অপরাহ্ণ
বড় জয়ে শুরু টি-২০ সিরিজ

দুর্দান্ত ব্যাটিংয়ে ওপেনিং জুটিতে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড গড়েছেন তামিম ইকবাল ও লিটন দাস। ক্যারিয়ার সেরা ইনিংস খেলেছেন বাঁহাতি ব্যাটসম্যান সৌম্য সরকারও। বাংলাদেশ পেল এই ফরম্যাটে নিজেদের তৃতীয় সর্বোচ্চ সংগ্রহ। অনেক রেকর্ডের দিনে জিম্বাবুয়েকে ৪৮ রানের ব্যবধানে হারিয়েছে বাংলাদেশ।

টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের চতুর্থ সর্বোচ্চ রানের ব্যবধানে জয়ের রেকর্ড এটি। এই ফরম্যাটে বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রানের জয় হলো ২০১২ সালে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে ৭১ রানে। এই জয়ের মাধ্যমে দুই ম্যাচ সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল মাহমুদউল্লাহর দল।

আজ সোমবার প্রথম টি-টোয়েন্টিতে আগে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ওভারে তিন উইকেটে ২০০ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশ। দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৬২ রান করেন সৌম্য। ৫৯ করেন ছন্দে থাকা লিটন দাস।

বাংলাদেশের দেওয়া বিশাল লক্ষ্যের বিপরীতে ব্যাট করতে নেমে ১৯তম ওভারে ১৫২ রানে গুটিয়ে যায় জিম্বাবুয়ে। শুরুতেই ধাক্কা খায় সফরকারীরা। ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারেই শফিউলের বলে আউট হন ব্রেন্ডন টেইলর। এরপর ফিরে যান ক্রেইগ আরভিন-সিকান্দাররা।

বাংলাদেশের হয়ে বল হাতে লেগ স্পিনার আমিনুল বিপ্লব ও মুস্তাফিজুর রহমান নেন তিনটি করে উইকেট। শফিউল পান একটি। সাইফউদ্দিনও পান এক উইকেট।

এর আগে মিরপুর শেরেবাংলায় টস জিতে বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ে পাঠায় জিম্বাবুয়ে। ব্যাট করতে নেমে প্রথম ওভার থেকেই জিম্বাবুয়ের বোলারদের উপর চড়াও হন তামিম-লিটন। ব্যাট হাতে শুরুর ওভারেই ছক্কা হাঁকান লিটন। এরপর মারেন বাউন্ডারি।

থেমে ছিলেন না তামিমও। শুরুতে একটু সময় নেন তিনি। এরপর কার্ল মুম্বার ডেলিভারিতে হাঁকান প্রথম বাউন্ডারি। পাওয়ার প্লেতে দুই ওপেনার মিলে তুলেন ৫৯ রান। এরপর ৯২ রানে ভাঙে ওপেনিং জুটি। মাধাভেরের বলে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান তামিম ইকবাল। ফেরার আগে ৩৩ বলে তিন বাউন্ডারি ও দুই ছক্কায় ৪১ রান করেন তিনি।

লিটনের সঙ্গে ওপেনিং জুটিতে রেকর্ড গড়েন তামিম। ওপেনিং জুটিতে তাঁরা করেন ৯২ রান। যেটা টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের সেরা উদ্বোধনী জুটি। এর আগে সিলেটে ওয়ানডেতে বাংলাদেশের সেরা উদ্বোধনী জুটি উপহার দিয়েছেন তামিম-লিটন।

তামিম ফিরে যাওয়ার পর বেশিক্ষণ টিকেননি লিটন দাস। সিকান্দার রাজার বল ভুল লাইনে খেলে এলবির ফাঁদে পড়ে ফিরেন তিনি। অবশ্য আম্পায়ার এলবিডব্লিউ দেওয়ার পর রিভিউ নেন তিনি। কিন্তু তাতে লাভ হয়নি। ফেরার আগে ৩৯ বলে তিন ছক্কা ও পাঁচটি চারে ৫৯ রান করেন ডানহাতি ওপেনার।

লিটন-তামিম ফেরার পর জুটি বাঁধেন সৌম্য সরকার ও মুশফিকুর রহিম। ছুটি কাটিয়ে মাঠে ফেরা সৌম্য ভালোই ছন্দে ব্যাট করেন। ব্যাট হাতে ভালো শুরু করেন মুশফিকও। কিন্তু উইকেটে থিতু হতে পারেননি তিনি। সাত বলে ১৭ রান করে আউট হন তিনি। তবে শেষ পর্যন্ত টিকে ছিলেন সৌম্য। তাঁর ব্যাটে চড়ে শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ওভারে ২০০ রানে থামে বাংলাদেশ। ৩০ বলে হাফসেঞ্চুরি তুলে নেওয়া সৌম্য পরপর ছক্কা হাঁকিয়ে ৬২ রানে অপরাজিত থেকে দলকে ২০০ রানের ঘরে নিয়ে যান।

বাংলাদেশ: ২০ ওভারে ২০০/৩ (তামিম ৪১, সৌম্য ৬২, লিটন ৫৯, মুশফিক ১৭, মাহমুদউল্লাহ্ ১৪; সিকান্দার ৪-০-৩১-১, মুম্বা ২-০-২৪-০, টিরিপানো, ৪-০-৩৯-০, এমপোফু ৩-০-৩৮-১, মাধাভেরে ২-০-১৫-১, উইলিয়ামস ৪-০-৩১-০।

জিম্বাবুয়ে : ১৯ ওভারে ১৫২/১০(উইলিয়ামস ২০ , টিনাশে ২, টেইলর ১, সিকান্দার ১০, মাধেভেরে ৪, আরভিন ৮, মুতুমবামি ২০, মাটুমবোদজি ২, টিরিপানো ২০, মুম্বা ২৫, এমপোফু ২, মেহেদী ৪-০-২৯-০, সাইফউদ্দিন ৩-০-১৯-১, শফিউল ৩-০-১৯-১, মুস্তাফিজ ৪-০-৩২-৩, আমিনুল ৪-০-৩৪-৩, আফিফ ২-০-১৮-১)

ফল : ৪৮ রানে জয়ী বাংলাদেশ।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন