করোনাসহ ভ’য়ানক রো’গ ও গ’জব থেকে বাঁ’চতে যে দোয়া পড়বেন

প্রকাশিত: মার্চ ৮, ২০২০ / ০৫:৫৫অপরাহ্ণ
করোনাসহ ভ’য়ানক রো’গ ও গ’জব থেকে বাঁ’চতে যে দোয়া পড়বেন

করোনাভাইরাসে কাঁপছে পুরো বিশ্ব। বিশ্বের ১০৪টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে ম’রণব্যাধি করোনাভাইরা। এ ভাইরাসে আ’ক্রান্ত হয়েছে ১ লাখ ৬ হাজার ১৯৮ জন।

এ রোগে মা’রা গেছে প্রায় ৩ হাজার ৬০০ জন। নতুন নতুন সং’ক্রামক ব্যা’ধি থেকে মুক্ত থাকতে বিশ্বনবির উ’পদেশ ও দোয়া গ্রহণ করা আবশ্যক।

রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘যখন কোনা জাতির মধ্যে অ`শ্লীলতা-বেহায়াপনা ছড়িয়ে পড়বে তখন তাদের মধ্যে এমন এমন নতুন রো’গব্যাধি ছড়িয়ে পড়বে, যা ইতিপূর্বে কখনো দেখা যায়নি।’ (ইবনে মাজাহ)

তাই করোনাসহ নতুন নতুন সং’ক্রামক রোগ-ব্যাধি ও ম’হামা’রী দেখা দিলে তা থেকে আ’শ্রয় লাভে আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করা এবং ধৈ’র্যধারণ করার নসিহত করেছেন বিশ্বনবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম। বিশেষ করে দুটি দোয়ার মাধ্যমে আল্লাহর কাছে আ’শ্রয় চাইতে বলেছেন তিনি। আর তা হলো-

اَللَّهُمَّ اِنِّىْ اَعُوْذُ بِكَ مِنَ الْبَرَصِ وَ الْجُنُوْنِ وَ الْجُذَامِ وَمِنْ سَىِّءِ الْاَسْقَامِ
উচ্চারণ : আল্লাহুম্মা ইন্নি আউজুবিকা মিনাল বারাচি ওয়াল জুনুন ওয়াল ঝুজাম ওয়া মিন সায়্যিয়িল আসক্বাম।’ (আবু দাউদ, তিরমিজি)

অর্থ : ‘হে আল্লাহ! আপনার কাছে আমি শ্বেত রোগ থেকে আশ্রয় চাই। মা`তাল হয়ে যাওয়া থেকে আশ্রয় চাই। কু’ষ্ঠু রোগে আ’ক্রান্ত হওয়া থেকে আশ্রয় চাই। আর দুরারো’গ্য ব্যা’ধি (যেগুলোর নাম জানিনা) থেকে আপনার আ’শ্রয় চাই।

اللَّهُمَّ إِنِّي أَعُوذُ بِكَ مِنْ مُنْكَرَاتِ الأَخْلاَقِ وَالأَعْمَالِ وَالأَهْوَاءِ وَ الْاَدْوَاءِ উচ্চারণ : ‘আল্লাহুম্মা ইন্নি আউজুবিকা মিন মুনকারাতিল আখলাক্বি ওয়াল আ’মালি ওয়াল আহওয়ায়ি, ওয়াল আদওয়ায়ি।’

অর্থ : হে আল্লাহ! নিশ্চয় আমি তোমা’র কাছে খা’রাপ (নষ্ট-বাজে) চরিত্র, অন্যায় কাজ ও কুপ্রবৃত্তির অনিষ্টতা এবং বাজে অ’সুস্থতা ও নতুন সৃষ্ট রোগ বালাই থেকে আশ্রয় চাই।’ (তিরমিজি)

সং’ক্রামক ব্যা’ধিতে বিশেষ করণীয়

রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, ‘যখন কোনো এলাকায় মহামা’রি (সং’ক্রামক ব্যধি) ছড়িয়ে পড়ে তখন যদি তোম’রা সেখানে থাকো, তাহলে সেখান থেকে বের হবে না। আর যদি তোম’রা বাইরে থাকো তাহলে তোম’রা সেই আ’ক্রান্ত এলাকায় যাবে না।’ (বুখারি ও মু’সলিম)

হাদিসের নি’র্দেশনা অনুসারে মানুষের অ’বাধ চলাচলে নিয়’ন্ত্রণ থাকা খুবই জরুরি। বিশ্বনবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম-এর এ নির্দেশের কারণ ব্যাখ্যা করেছেন ওলামায়ে কেরাম। তারা বলেছেন-

‘যদি মহামা’রি আ’ক্রান্ত এলাকার লোকজন পলায়ন করে অ’ন্যত্র চলে যায় তবে যে সব লোক ম’হামা’রিতে আ’ক্রান্ত হয়েছেন তাদের সেবা-শু’শ্রূষা কে করবেন?

সম্পদশালী ব্যক্তিরা পা’লিয়ে যেতে স’ক্ষম হলেও গরিব অ’সহায় ব্যক্তিরা তো পা’লাতে স’ক্ষম হবে না।

যদি কেউ মনে করে যে, তাকে এ ভাইরাস বা রোগে এখনও আ’ক্রমণ করেনি, তাই সে পা’লিয়ে যাবে। যদি ওই ব্যক্তি আ’ক্রান্ত হয়ে যায়, তবে সে যে এলাকায় যাবে সে এলাকার মানুষও তার মাধ্যমে সং’ক্রমিত হবে।

আবার অন্য এলাকা থেকে যদি কোনো সুস্থ মানুষ আ’ক্রান্ত এলাকায় আসে তবে সেও এ ভাইরাস বা মহামা’রিতে আ’ক্রান্ত হয়ে যেতে পারে।

আল্লাহ তাআলা সব মানুষকে ক’রোনাসহ সব ধরনের মহামা’রি ও সংক্রামক ব্যাধি থেকে মুক্ত থাকার তাওফিক দান করুন। হাদিসের ওপর যথাযথ আমল করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন