মহিলা লীগ নেত্রীর ২ পা ‘হা’তুড়ি দিয়ে ভে’ঙে দিল যুবলীগ নেতা’!

প্রকাশিত: মার্চ ৭, ২০২০ / ১০:০৪অপরাহ্ণ
মহিলা লীগ নেত্রীর ২ পা ‘হা’তুড়ি দিয়ে ভে’ঙে দিল যুবলীগ নেতা’!

ঢাকার আশুলিয়ায় ডিশ ব্যবসা নিয়ে দ্ব’ন্দ্বে হা’তু’ড়ি দিয়ে পি’টি’য়ে যুব মহিলা লীগ নেত্রী মনিকা হাসানের (২৮) পা ভে’ঙে দেয়ার অ’ভি’যো’গ উঠেছে যুবলীগ নেতা সোহাগ (২৭) ও তার লোকজনের বি’রু’দ্ধে।

প্রতিপক্ষ সোহাগ ডিশ ব্যবসার ফিডারের পরিচালক ও যুবলীগের ধামসোনা ইউপির ৭ নং ওয়ার্ডের সহ-সভাপতি।

শনিবার বিকাল সাড়ে ৩টায় আশুলিয়ার দক্ষিণ বাইপাইল (চারালপাড়া) এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে আশুলিয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

সরেজমিন জানা গেছে, শনিবার বিকালে হঠাৎ মহিলা যুবলীগের নেত্রী মনিকা হাসানের নেতৃত্বে ২০-৩০ জনের একটি দল সোহাগের মালিকানাধীন গোল্ড স্যাটেলাইটের ডিশের তার কাটতে থাকে।

এ সময় ওই অফিসের কর্মচারীরা বাধা দিলে তারা ফিড অফিসে অ’ত’র্কি’ত হা’ম’লা চালায় এবং অফিসের মা’লা’মাল লু’ট’পা’টসহ ডিশ ক্যাবল কে’টে নিয়ে যায়।

এ সময় সোহাগের ভাগিনা শাকিল (২২) লু’ট’পা’টকারীদের ছবি ছাদের ওপর থেকে ধারণ করতে থাকলে তা দেখে মনিকার নির্দেশে তার লোকজন শাকিলকে বে’দম মা’র’ধ’র করে। আ’হ’ত অবস্থায় শাকিলকে ধা’মরাই স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন স্থানীয়রা।

পরে সোহাগ ও এলাকাবাসী একত্র হয়ে মনিকার লোকজনকে ধাওয়া করে। এ সময় হা’ম’লা’কারীরা মনিকাকে লা’ঠি’সো’টা ও হা’তু’ড়ি দিয়ে বে’দ’ম মা’র’পি’ট করে।

এতে তার দুই পা ও শরীরের বিভিন্ন অ’ঙ্গ আ’ঘা’তপ্রাপ্ত হয়। পরে তার আত্মীয়রা তাকে সাভার এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিদর্শন করেন এবং ডিশ অফিসের ম্যানেজার আমির হোসেনকে আ’ট’ক করে।

অপর দিকে আহত শাকিল হোসেনকে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে তার পিতা গোলাম মোস্তফা আশুলিয়া থানায় অ’ভি’যো’গ দিতে গেলে পিতা ও পুত্রকে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আ’ট’ক করেছে বলে তাদের পরিবার সূত্র জানিয়েছে।

এ সম্পর্কে যুবলীগ নেতা সোহাগ জানান, দীর্ঘদিন যাবৎ তিনি ডিশ ব্যবসাটি পরিচালনা করছেন। হঠাৎ তার প্রতিবেশী যুব মহিলা লীগের আশুলিয়া থানা আহ্বায়ক মনিকা হাসান তার ব্যবসাটি দখলে নিতে পাঁয়তারা করে আসছে। এ ঘটনায় বিভিন্নভাবে তাকে হ’য়’রা’নি করে তার ডিশ ব্যবসাটি দ’খ’লে নিতে ম’রি’য়া হয়ে ওঠে।

এ বিষয়ে কিছুদিন পূর্বে ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার বরাবরে মনিকাকে শ্লী’ল’তা’হানির অভিযোগে আবেদন করা হয়েছিল। ওই ঘটনায় ঢাকা জেলা এডিশনাল এসপি সাইদুর রহমান বিষয়টির নি’ষ্পত্তি করে দেয় উভয় গ্রুপের উপস্থিতিতে। এ নিষ্পত্তির ১৫ দিনের মধ্যেই ডিশ ব্যবসাটি দখলে নিতে মনিকা আবারও হা’ম’লা চালিয়ে তার অফিস ভাং’চু’র, মা’লা’মা’ল লু’ট’পা’টসহ মা’র’ধরের ঘটনা ঘটায়।

মনিকার আশুলিয়া থানার অ’ভি’যোগ সূত্রে জানা যায়, শনিবার আশুলিয়ার দক্ষিণ বাইপাইল এলাকায় নিজ বাড়িতে যাওয়ার সময় দক্ষিণ বাইপাইল এলাকায় পৌঁছলে রাস্তার মধ্যে আগে থেকে ওঁৎপেতে থাকা ডিশ ব্যবসায়ী যুবলীগ নেতা সোহাগ হোসেন ও তার সঙ্গীয়রা ডিশ ব্যবসার জের ধরে তাকে লা’ঠি’সোটা ও হা’তু’ড়ি দিয়ে পি’টি’য়ে দুই হাত ও দুই পা আ’হ’ত করে। পরে তাকে দ্রুত উ’দ্ধা’র করে চিকিৎসার জন্য সাভারের এনাম মেডিকেল কলেজ অ্যান্ড হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

খবর পেয়ে পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও সাভার উপজেলা পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান শাহাদাৎ হোসেন খান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

এ বিষয়ে আশুলিয়া থানার ওসি শেখ রিজাউল হক দিপু বলেন, যারাই এ হা’ম’লা চালিয়েছে এবং র’ক্তা’ক্ত জ’খ’ম করেছে তাদের আ’ট’কের প্রক্রিয়া চলছে। এ ঘটনায় আশুলিয়া থানায় মা’ম’লা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন