করোনায় সারা বিশ্বে মৃত বেড়ে ৩২৮৫

প্রকাশিত: মার্চ ৫, ২০২০ / ১০:২৮পূর্বাহ্ণ
করোনায় সারা বিশ্বে মৃত বেড়ে ৩২৮৫

প্রাণ’ঘা’তি করোনার প্রচণ্ড হানায় বিপর্যস্ত পুরো বিশ্ব। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে করোনাভাইরাসে মৃতের সংখ্যা বেড়েই চলছে। ভাইরাসটির কারণে এখন পর্যন্ত ৩ হাজার ২৮৫ জনের প্রাণহানীর খবর পাওয়া গেছে।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন ৯৫ হাজার ৩৮২ জন। এর মধ্যে চীনে মোট মৃত্যুর সংখ্যা তিন হাজার পেরিয়েছে।

নতুন করে মৃত্যু হয়েছে ৩১ জনের। এ ছাড়া দেশটিতে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৮০ হাজার ৪০৯ জনে। এর মধ্যে নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ১৩৯ জন।

বিবিসি বলছে, চীনের চেয়ে এখন চীনের বাইরে এ ভাইরাস ছড়াচ্ছে দ্রুতগতিতে। তবে অধিকাংশ রোগীর ক্ষেত্রে কেবল মৃদু উপসর্গ দেখা যাচ্ছে।

এরমধ্যে চীনের বাইরে সবচেয়ে বেশি আক্রান্তের সংখ্যা দক্ষিণ কোরিয়ায়। সে দেশে পাঁচ হাজার ৩২৮ জন আক্রান্ত হয়েছেন। তবে আশার কথা, ৫০ হাজার ৬৯১ জনেরও বেশি মানুষ সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গেছেন।

নতুন করে যুক্তরাষ্ট্রের ১২টি রাজ্যে প্রা’ণঘা’তী করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। এতে শতাধিক ব্যক্তি আক্রান্ত হয়েছেন। বুধবার তিনজনের মৃত্যু হয়েছে। এ নিয়ে করোনায় যুক্তরাষ্ট্রে নয়জন মারা গেছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশনের (সিডিসি) তথ্য অনুযায়ী, করোনায় যুক্তরাষ্ট্রে ১০৬ জন আক্রান্ত হয়েছেন। এরমধ্যে ৪৫ জন প্রমোদতরী ডায়মন্ড প্রিন্সেসের যাত্রী ছিলেন। এর বাইরে তিনজনকে চীনের উহান শহর থেকে ফিরিয়ে আনা হয়।

করোনা আতঙ্ক নিয়ে বিভিন্ন বন্দর ঘুরে ডায়মন্ড প্রিন্সেস জাপানের ইয়োকোহামা বন্দরে নোঙর করে। এ প্রমোদতরীর যাত্রীদের মাধ্যমে অনেক দেশে ভাইরাসটি ছড়িয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

রাশিয়ায় এখন পর্যন্ত ৬ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে। এর মধ্যে জাপানের প্রমোদতরী ডায়মন্ড প্রিন্সেস থেকে ফিরিয়ে আক্রান্ত তিন নাগরিক রয়েছে। প্রথম আক্রান্ত হয় মস্কোর এক ব্যক্তি। ওই ব্যক্তি সম্প্রতি ইতালি সফর শেষে ফিরে আসে।

আক্রান্তের সংখ্যা কম হলেও অন্যান্য দেশের মতোই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে দেশজুড়ে। এমন পরিস্থিতিতে নাগরিকদের নতুন করে চীন, ইরান ও ইতালি ও দক্ষিণ আফ্রিকার ভ্রমণ একেবারেই বন্ধ করে দিয়েছে ভ্লাদিমির পুতিনের সরকার।

করোনায় ইতালিতে মৃতের সংখ্যা বাড়ছেই। একইসঙ্গে দেশটিতে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যাও। বুধবার পর্যন্ত কর্তৃপক্ষের বরাতে এএএফপি জানায়, ইতালিতে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৭৯ জনে দাঁড়িয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা দুই হাজার ২৬৩ জন।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অবিলম্বেই চিকিৎসা উপকরণে ঘাটতি দেখা দিতে পারে বলে আশঙ্কা করছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও)। এ সংকট মোকাবেলায় মেডিকেল কোম্পানিগুলোকে উৎপাদন ৪০ শতাংশ বাড়ানোর অনুরোধ জানিয়েছে সংস্থাটির কর্মকর্তারা।

জেনেভায় মঙ্গলবার এক বিবৃতিতে ডব্লিউএইচও প্রধান টেড্রস আধানম গ্যাব্রিয়েসুস বলেন, আক্রান্তদের মধ্যে মৃত্যুর হার প্রায় ৩.৪ শতাংশ, যা মৌসুমি ফ্লুতে মৃত্যুহারের (এক শতাংশ) চেয়ে অনেক বেশি।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন