যতদিন প্রেসিডেন্ট থাকব এসব হবে না, সমকা’মিতা নিয়ে পুতিন

প্রকাশিত: মার্চ ৪, ২০২০ / ০৩:৫৯অপরাহ্ণ
যতদিন প্রেসিডেন্ট থাকব এসব হবে না, সমকা’মিতা নিয়ে পুতিন

সমকামী বিয়েতে ঘোর বিরোধিতা ভ্লাদিমির পুতিনের। আর এ বিষয়ে জনসম্মুখে গত মাসে তিনি বলেন, প্রথম অ’ভিভাবক এবং দ্বিতীয় অ’ভিভাবকের কথা বলা হচ্ছে। কিন্তু আমি বলে দিতে চাই, যতদিন প্রেসিডেন্ট থাকব এ সব হবে না। মা এবং বাবা- এটাই শেষ কথা।

সে ঘোষণার পরপরই সংবিধান সংশোধনের একটি খসড়া প্রস্তুত করেছেন প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। তাতে ‘বিয়ে’ বলতে নারী এবং পুরুষের স’ম্পর্ক বলে ঘোষণা করা হবে। এ সংশোধনী পাস হলে স্বাভাবিক নিয়মেই অন্য সব বিয়ে বেআইনি এবং অসাংবিধানিক হয়ে যাবে।

আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমগুলোতে বলা হচ্ছে, পুতিন বরাবরই রক্ষণশীল ঘরানার রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব। তবে চতুর্থবারের জন্য ক্ষমতায় আসার পর যেন তিনি একটু বেশিই রক্ষণশীল হয়ে পড়েছেন। এ জন্য রুশ সমাজের রক্ষণশীল অংশ এবং অর্থোডক্স চার্চের সম’র্থনও পাচ্ছেন তিনি। সেই সম’র্থন সঙ্গে নিয়েই এই নতুন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন পুতিন।

সংবিধান সংশোধনের নতুন এ খসড়া এখনও জনসমক্ষে আনা হয়নি। তবে রাশিয়ার নিম্নকক্ষ ‘ডুমা’ এ নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেছে। তারাই জানিয়েছে, এটা অ’ত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয় যে বিয়ে এখন থেকে শুধু নারী এবং পুরুষের স’ম্পর্ক বলেই বিবেচিত হবে। এমন প্রস্তাব আনার জন্য প্রেসিডেন্টতে ধন্যবাদও জানিয়েছেন তিনি।

পার্লামেন্টে এ সংশোধনী বিল পাস হওয়ার পর তার ওপর গণভোট হবে। প্রস্তাবটি যেহেতু সরাসরি প্রেসিডেন্টের কাছ থেকে এসেছে, তাই সর্বস্তরেই তা পাস হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল বলে মনে করছেন পর্যবেক্ষকেরা।

১৯৯৩ সালের পর এই প্রথম রাশিয়ায় সংবিধান সংশোধন করা হচ্ছে। জানুয়ারিতে সরকার ভেঙে দেয়ার সময় পুতিন জানিয়ে ছিলেন যে তিনি সংবিধান সংশোধন করবেন। অনেকে ভেবেছিলেন, সংশোধন করে ফের নিজের প্রেসিডেন্ট হওয়ার পথ প্রশস্ত করবেন পুতিন।

কিন্তু আপাতত তেমন কিছু হওয়ার কোনও ইঙ্গিত মেলেনি। নতুন খসড়া স’ম্পর্কে যেটুকু প্রকাশ্যে এসেছে তাতে এই বিয়ের অংশটুকু ছাড়া থাকছে রাশিয়াকে সোভিয়েতের উত্তরাধিকারী ঘোষণা করার বিষয়টিও।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন