দিল্লি পুলিশ যেন ভাড়াটে গু’ন্ডা!

প্রকাশিত: মার্চ ২, ২০২০ / ১২:৩০অপরাহ্ণ
দিল্লি পুলিশ যেন ভাড়াটে গু’ন্ডা!

টানা পাঁচদিন ধরে তা’ণ্ডব চলেছে উত্তর-পূর্ব দিল্লির বিস্তীর্ণ অংশে। প্র’কাশ্যে এসেছে হিং’সার নানা ছবি। ভাইরাল হয়েছে অসংখ্য ভিডিও।

পরিসংখ্যান বলছে দিল্লি হিং’সার ব’লি হয়েছেন ৪২ জন। তাঁদের মধ্যেই ছিল ২৪ বছরের ত’রুণ ফয়জান। পরিবারের অভিযোগ, পুলিশ লক-আপেই পি’টিয়ে মে’রে ফেলা হয়েছে ফয়জানকে।

সদ্যই প্র’কাশ্যে আসা একটি ভিডিওতে দেখা গিয়েছিল, পাঁচটি ছে’লেকে বে’ধড়ক মা’রছে উর্দিধারী চার-পাঁচজন কি’ল-চড়-লা’থি-ঘুষি-লা’ঠির বা’ড়ি বা’দ যাচ্ছিল না কিছুই।

এমনকি তাদের প্রাইভেট পার্টসেও আ’ঘাত করে পুলিশ নামি পি’শাচেরা । সেই সঙ্গেই বারবার ওই উর্দিধারীদের বলতে শোনা গিয়েছিল, “আজাদি চাই? এই নে আজাদি।“

মা’র খাওয়া ওই ছে’লেগুলোর মধ্যেই ছিল ফয়জান। মা’রতে মা’রতেই জো’র করে তাঁকে ‘জনগণমন’ গাওয়ানো হয়েছিল। বাকিরা তখন উর্ধিধারীদের পায়ে ধ’রে প্রা’ণভিক্ষার আর্জি জানাচ্ছিল।

এরপর মা’র খেতে খেতে মা’টিতে লু’টিয়ে প’ড়েছিল ফয়জান। অল্প বয়স, রো’গা-পাতলা চেহারা, এত নারকীয় অ’ত্যাচার শ’রীর আর স’ইতে পারেনি। ঘটনার দু’দিন পর হা’সপাতালে মা’রা যায় ফয়জান।

ভাইয়ের মৃ’ত্যুর জন্য পু’লিশকেই দা’য়ী করেছে ফয়জানের বড় দাদা নাঈম। তিনি জানিয়েছেন, গত ২৩ তারিখ বাড়ির কাছেই একটা জায়গায় গিয়েছিল ফয়জান। শান্তিপূর্ণ ভাবে সেখানে সিএএ বি’রোধী আন্দোলন চলছিল।

আচমকাই ওই এলাকায় কাঁ’দানে গ্যা’সের শেল ফা’টতে শুরু করে। ভ’য়ে-আ’তঙ্কে চি’ৎকার করে যে যেদিকে পারেন পা’লাতে শুরু করেন। মুহূর্তেই হুড়োহুড়ি পড়ে যায় ওই এলাকায়। সেই সময়েই পুলিশের সামনে পড়ে যায় ফয়জান এবং আরও কয়েকজন।

অভিযোগ, বিনা বাক্যব্যয়ে তাদের বে’ধড়ক মা’রতে শুরু করে পু’লিশ। নঈমের কথায়, “পু’লিশ নৃ’শংস ভাবে ও’দের মে’রে ফে’লে রেখে চলে গিয়েছিল। বারবার বলছি আজাদি চাই, এই নে আজাদি। একবারও জি’জ্ঞেস পর্যন্ত করেনি কীসের জন্য আজাদি চাই। এভাবে মা’রার অধিকার পু’লিশকে কে দিয়েছে?”

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন