সেই বিজেপি নেতাদের বি’রুদ্ধে আপাতত কোনো মা’মালা হচ্ছে না

প্রকাশিত: ফেব্রু ২৭, ২০২০ / ০৭:২০অপরাহ্ণ
সেই বিজেপি নেতাদের বি’রুদ্ধে আপাতত কোনো মা’মালা হচ্ছে না

উ’স’কা’নি’মূলক মন্তব্য করে দিল্লিতে মুসলিমদের ওপর হা’ম’লায় ইন্ধন যোগানো বিজেপি নেতাদের বি’রু’দ্ধে অ’ভি’যোগ দায়ের করা সং’ক্রা’ন্ত মা’ম’লা’য় দিল্লি পুলিশ ও কেন্দ্রীয় সরকারকে চার সপ্তাহ সময় দিল দিল্লি হাইকোর্ট।

এ দিন আদালতের কাছে এ ব্যাপারে সময় চেয়ে নেয় কেন্দ্র ও দিল্লি পুলিশ। হেট স্পিচ তথা উ’স’কা’নিমূলক মন্তব্য পরীক্ষা করে দেখে জবাব দেওয়ার জন্য পুলিশকে চার সপ্তাহ সময় দেয় আদালত। এই মা’ম’লার পরবর্তী শুনানি ১৩ এপ্রিল। এর আগে অবিলম্বে অ’ভি’যোগ দায়েরের নির্দেশ দেওয়া এক বিচারককে বদলি করার পরই আদালত বিষয়টি পিছিয়ে দিলো।

যে উ’স’কা’নিমূলক মন্তব্য দিল্লির হিং’সা’র অনুঘটক বলে অভিযোগ উঠেছে, তা বলার জন্য অ’ভি’যু’ক্তদের বি’রু’দ্ধে এখনই অ’ভি’যোগ দায়ের করা সম্ভব নয় বলে আদালতে জানিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার ও দিল্লি পুলিশ।

সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা বলেনন, তা’ড়াহুড়ো করে মামলা করায় সমস্যা রয়েছে। এখন মা’ম’লা করার সময় নয়। যথাসময়ে অ’ভি’যোগ দায়ের করা হবে বলে জানিয়ে তিনি দিল্লি হাইকোর্টের থেকে কিছুটা সময় চান। এরপর চার সপ্তাহ সময় দেয় আদালত।

বুধবারই দিল্লি পুলিশকে একহাত নিয়ে তীব্র ভর্ত্‍‌সনা করেছিল দিল্লি হাইকোর্ট। বিচারপতিরা বলেন, যাঁরা উ’স’কা’নিমূলক মন্তব্য করছেন, তাঁদের বি’রু’দ্ধে অ’ভি’যোগ করার ক্ষেত্রের বি’লম্ব হওয়া উচিত না। এ বিষয়ে গুরুত্ব দেওয়ার জন্য দিল্লি পুলিশকে বলে আদালত।

দুই বিচারপতির বেঞ্চের এজলাসে চার বিজেপি নেতার উসকানিমূলক মন্তব্যের ভিডিও দেখানো হয়েছে। এই চার নেতারা হলেন, কপিল মিশ্র, অনুরাগ ঠাকুর, অভয় ভার্মা ও প্রবেশ ভার্মা। কেন তাঁদের বি’রু’দ্ধে অ’ভি’যোগ দায়ের করা হয়নি, তা নিয়েও প্রশ্ন তোলে আদালত।

ওই ঘটনার পরই বুধবার গভীর রাতে বিচারপতি এস মুরলীধরের বদলির নির্দেশ আসে। তাঁকে পাঞ্জাব ও হরিয়ানা হাইকোর্টে বদলি করা হয়েছে । বুধবারই তাঁর এজলাসে দিল্লির সং’ঘ’র্ষের নিয়ে শুনানি চলাকালীন কেন্দ্র, দিল্লি সরকার ও দিল্লি পুলিশকে তাঁর তো’পে’র মুখে পড়তে হয়।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন