মাধ্যমিক পর্যন্ত পাঠ্যক্রমে বিভাজন দরকার নেই : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত: ফেব্রু ২৬, ২০২০ / ০৩:০৩অপরাহ্ণ
মাধ্যমিক পর্যন্ত পাঠ্যক্রমে বিভাজন দরকার নেই : প্রধানমন্ত্রী

এসএসসি পর্যন্ত পাঠ্যক্রমে কোনো বিভাজন দরকার নেই। আর নবম শ্রেণি পর্যন্ত বিজ্ঞান বাধ্যতামূলক করার নির্দেশনা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের শাপলা হলে আয়োজিত শিক্ষার্থীদের মধ্যে স্বর্ণপদক বিতরণ করে এসব কথা বলেন তিনি।

শেখ হাসিনা বলেন, গবেষণার মাধম্যে সবকিছু করা যায় এটা বাস্তব। গবেষণা ছাড়া কোনো কিছুর উৎকর্ষতা লাভ করা যায় না। আর যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আমাদের চলতে হবে তাই জ্ঞানভিত্তিক সমাজ গড়ে তুলতে হবে।

প্রাথমিক থেকে দ্বাদশ পর্যন্ত পড়শোনাতে রয়েছে ৪টি স্তর। এর মধ্যে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত অভিন্ন ১০ বিষয়ে পড়াশোনা করলেও দশম শ্রেণি থেকে বিভক্ত হয়ে যায় ৩টি ভাগে। ফলে কিশোর যুবাদের একটি বড় অংশ বঞ্চিত থেকে যায় বিজ্ঞান-প্রযুক্তি বা যুগোপযোগী শিক্ষা থেকে বলে জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, একটা সময় ছিল আমাদের ছেলেমেয়েদের বিজ্ঞান পড়ার দিকে আগ্রহ ছিল না। কারণ নবম শ্রেণি থেকে ভাগ করে দেয়া হয় কে কী পড়বে। আমার মনে হয় এ ভাগটা থাকার দরকার নেই। মাধ্যমিক পর্যন্ত তারা সব বিষয় পড়তে পারে। মাধ্যমিকের পরে গিয়ে বিভক্ত হয় তাহলে সেটাই ভালো। তাহলে অন্ততপক্ষে তার মেধা বিকাশের সুযোগ পাবে।

মেধাবী শিক্ষার্থীরাই ভবিষতে বাংলাদেশের কারিগড় বলেন প্রধানমন্ত্রী। কওমীসহ শিক্ষা ব্যবস্থায় দেশের কোনো জনগোষ্ঠীই যাতে পিছিয়ে না পড়ে সে লক্ষে পরিকল্পনা নেয়া হচ্ছে বলেন তিনি।

এ সময় দেশসেরা ১৭২ শিক্ষার্থীকে ‘প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক’ ২০১৮ প্রদান করেন শেখ হাসিনা। বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের (ইউজিসি) উদ্যোগে দেশের ৩৬টি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের এ স্বর্ণপদক দেয়া হয়।

এ বছর দেশের ৩৬টি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদে সর্বোচ্চ নম্বর বা সিজিপিএ অর্জনকারী ১৭২ শিক্ষার্থীকে (৮৮ জন ছাত্রী ও ৮৪ জন ছাত্র) ‘প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক’ দেয়া হয়। ইউজিসির চেয়ারম্যান প্রফেসর কাজী শহীদুল্লাহর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো. মাহবুব হোসেন। অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি, শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের মুখ্য সচিব ড. আহমদ কায়কাউস এবং ইউজিসির সদস্য প্রফেসর ড. মো. সাজ্জাদ হোসেন উপস্থিত ছিলেন।

২০১৭ সালে ১৬৩ জন শিক্ষার্থীকে প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক প্রদান করা হয়। দেশের বিশ্ববিদ্যালসমূহের কৃতি শিক্ষার্থীদের মেধা বিকাশ ও অধ্যায়নে উৎসাহ প্রদানের জন্য ইউজিসি ২০০৫ সালে প্রধানমন্ত্রী স্বর্ণপদক প্রবর্তন করেন।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন