সিলেটে একই পরিবারের ৫ জনের ইসলাম ধর্ম গ্রহণ

প্রকাশিত: ফেব্রু ২৬, ২০২০ / ১১:০৫পূর্বাহ্ণ
সিলেটে একই পরিবারের ৫ জনের ইসলাম ধর্ম গ্রহণ

ইসলাম শিক্ষা দেয় যে আল্লাহ দয়ালু, করুনাময়, এক ও অদ্বিতীয়। ইসলাম মানব জাতিকে সঠিক পথ দেখায়। ইসলামী বিশ্বাস অনুসারে, আদম হতে শুরু করে আল্লাহ্ প্রেরিত সকল নবী ইসলামের বাণীই প্রচার করে গেছেন।

যুগে যুগে বহু মানুষ ভিন্ন ধর্ম থেকে ইসলাম গ্রহন করেছেন। তারই ধারাবাহিকতায় এবার ফেনীতে মঙ্গলবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) একই পরিবারের ৫ জন হিন্দু ধর্মাবলম্বী নারী-পুরুষ ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আবুল ফোরকান বুলবুল, ইউপি সদস্য নিজাম উদ্দিন ফারুক, সাবেক ইউপি সদস্য আনোয়ার হোসেন রোজেনসহ শত শত ধর্মপ্রাণ মুসল্লির উপস্থিতিতে মসজিদের ইমাম হাফেজ বেলাল হোসেন ওই ৫ জনকে কালিমা পাঠ করান।

জানা যায়, সিলেট জেলার বড়লেখা উপজেলার গ্রামতলী গ্রামের মৃত দেবেন্দ্র চন্দ্র কর ও নটারানী করের ছেলে অনিল চন্দ্র কর বিগত ১৫ বছর পূর্বে দাগনভূঞা উপজেলার ইয়াকুবপুর ইউনিয়নের চণ্ডিপুর গ্রামের কামু ভূঞারপোলে মেসার্স এস কে রাইস মিলে সপরিবারে কাজ নেয়।

দীর্ঘদিন রাইস মিলে চাকরি করার পর হঠাৎ মিলটি বন্ধ হয়ে যায়। পরবর্তীকালে অটোরিকশা চালিয়ে পরিবার-পরিজন নিয়ে রাইস মিল এলাকায় ভাড়াবাসায় বসবাস করতে থাকেন অনিল চন্দ্র কর।

এক সময় এলাকার মুসল্লিদের সঙ্গে যোগাযোগ করে তিনি ইসলাম ধর্ম গ্রহণের ইচ্ছা পোষণ করেন। ইসলাম ধর্ম গ্রহণের পর অনিল চন্দ্র করকে (৫০) ওসমান গনি, স্ত্রী মনি করকে (৩৬) বিবি আমেনা, নিখিল চন্দ্র করকে (২০) আবুল কালাম, উজ্জ্বল চন্দ্র করকে (১৮) মোহাম্মদ আবদুল্লাহ, মেয়ে সোমা করকে (১০) বিবি ফাতেমা নাম দেয়া হয়।

ইউপি সদস্য নিজাম উদ্দিন ফারুক জানান, কোর্ট অ্যাফিডেভিটের মাধ্যমে হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে ওই ৫ জন। নওমুসলিমদের সহযোগিতা করার জন্য বিত্তবানদের প্রতি অনুরোধ জানান তিনি।

নওমুসলিম মোহাম্মদ ওসমান গনি জানান, আমরা স্বেচ্ছায় ও সজ্ঞানে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছি। কেউ আমাদের ধর্মান্তরিত হতে প্ররোচনা দেয়নি। ইসলামের সুশীতল ছায়াতলে আসতে পেরে নিজেদের ধন্য মনে করছি।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন