৪০ হাজার ই’য়া’বা শাড়ি ও কম্বলের ভাজে

প্রকাশিত: ফেব্রু ২৪, ২০২০ / ১০:২১অপরাহ্ণ
৪০ হাজার ই’য়া’বা শাড়ি ও কম্বলের ভাজে

বাসের দুই নারী যাত্রীর লাগেজ ত’ল্লাশি করে ৪০ হাজার পিস ই’য়া’বা উ’দ্ধা’র করেছে কুমিল্লার জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। উ’দ্ধা’র করা মা’দ’কের বাজারমূল্য আনুমানিক ১ কোটি ২০ লাখ টাকা।

মা’দ’ক পা’চা’রের অ’ভি’যোগে সুমি আক্তার ও লিপি বেগম নামের দুই নারীকে আ’ট’কের পর জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। রোববার রাতে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার আলেখারচর মাতৃভান্ডার নামে একটি মিষ্টি দোকানের সামনে থেকে তাদের আ’ট’ক করা হয়।

সুত্র জানায়, ই’য়া’বাসহ আটক সুমি আক্তার সিলেট বিশ্বনাথ উপজেলার মোল্লারগাঁও গ্রামের মো. দোলন মিয়ার স্ত্রী। লিপি বেগম একই জেলার ওসমানীনগর উপজেলার পুরানসতপুর গ্রামের সুরুজ আলীর স্ত্রী। তারা একটি মা’দ’ক সি’ন্ডি’কেটের হয়ে ই’য়া’বার চালান বহন করছিলেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

সোমবার সকালে এক সংবাদ সম্মেলনে কুমিল্লার পুলিশ সুপার সৈয়দ নূরুল ইসলাম জানান, কক্সবাজারের টেকনাফ সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে ই’য়া’বার চালান বুঝে নিয়েছেন দুই নারী। রোববার রাতে তারা অভিনব কায়দায় লাগেজের ভিতর শাড়ি ও কম্বলের ভাজে ই’য়া’বা নিয়ে সিলেট যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে তাদের গ্রে’প্তা’র করা হয়।

সূত্র জানায়, মা’দ’ক পাচারের কৌশল হিসেবে দুই নারী গাড়ি পরিবর্তনের জন্য ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দাড়িয়ে ছিলেন। কুমিল্লার আলেখারচর একটি মিষ্টি দোকানের সামনে রাত ১১টায় তাদের অবস্থান ছিল স’ন্দেহজনক।

ডিবি পুলিশের টহল টিম তাদের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু করলে বি’ভ্রা’ন্তিমূলক তথ্য দেন। এক পর্যায়ে পুলিশের দুই নারী সদস্য তাদের লাগেজ ত’ল্লাশি করে ই’য়া’বার চা’লান উ’দ্ধার করেন।

লাগেজে শাড়ি এবং কম্বল মোড়ানো অবস্থায় বড় বড় চারটি রোলে ৪০ হাজার পিস ই’য়া’বা ট্যাবলেট ছিল। পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদে দুই নারী জানিয়েছেন তারা আগেও যাত্রীবেশে টেকনাফ থেকে ইয়াবার চালান সিলেটের বিভিন্ন এলাকায় পা’চার করেছেন। তাদের রি’মা’ন্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদের প্রস্তুতি নিয়েছে পুলিশ।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন