বাকিতে ঝালমুড়ি খাওয়া নিয়ে তর্ক, শ্যালকের লাঠির আ’ঘাতে দুলাভাই নিহ’ত

প্রকাশিত: ফেব্রু ২৪, ২০২০ / ০৬:৩০অপরাহ্ণ
বাকিতে ঝালমুড়ি খাওয়া নিয়ে তর্ক, শ্যালকের লাঠির আ’ঘাতে দুলাভাই নিহ’ত

পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় শ্যালকের লাঠির আ’ঘা’তে দুলাভাই দেলোয়ার হোসেন (৫০) নিহত হয়েছেন। রবিবার দিবাগত রাত সাড়ে আটটার দিকে উপজেলার লক্ষণা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

পুলিশ নিহত দেলোয়ারের লা’শ উদ্ধারের পাশপাশি অভিযুক্ত শ্যালক দুলাল হাওলাদারকে আ’ট’ক করেছে। স্থানীয় সূত্র জানায়, নি’হ’ত দেলেয়ার হোসেন উপজেলার গুলিশা খালির লক্ষনা গ্রামের মৃ’ত. ফকর উদ্দিনের ছেলে।

তিনি দুই সন্তানের জনক। রবিবার রাতে লক্ষণা গ্রামের রাজ্জাক হাওলাদারের মাঠে একটি মাহফিল চলছিল। সেখানে ঝাল মুড়ি বিক্রি করছিলেন সেলিম মিয়া নামের ব্যক্তি। বাকিতে ঝাল মুড়ি খাওয়া নিয়ে সেলিমের সাথে তর্ক হয় মাহফিলে উপস্থিত দুলালের।

এক পর্যায়ে দুলাল উ’ত্তে’জিত হয়ে পাশের বাড়ি থেকে লা’ঠি নিয়ে মা’রতে যান সেলিমকে। কিন্তু মুড়ি বিক্রেতা সেলিমকে মা’র’তে মানা করেন দুলালের দুলাভাই দেলোয়ার হোসেন ও ছোট বোন শেফালি বেগম।

শ্যালক দুলাল এ পর্যায়ে উ’ত্তে’জনার বশে দুলাভাই দেলোয়ারের মাথাতেই লা’ঠি দিয়ে আ’ঘা’ত করেন। আ’হ’ত দেলোয়ারকে স্থানীয়রা উ’দ্ধা’র করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেন।

সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে বরিশাল শের-ই বাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন। পরে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে সোমবার সকালে দেলোয়ারের মু’ত্যু ঘটে।

মঠবাড়িয়া থানার ওসি মাসুদুজ্জামান জানান, নি’হ’তের ভাই নূরুল ইসলাম বাদি হয়ে একটি হ’ত্যা মা’ম’লা দায়ের করেছেন। লা’শের ম’য়’নাতদন্তের জন্য জেলা ম’র্গে পাঠানো হয়েছে। গ্রে’প্তা’র করা হয়েছে আ’সা’মি দুলালকে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন