সভাপতি পদে সালাউদ্দিনের বিপক্ষে লড়বেন বাদল রায়

প্রকাশিত: ফেব্রু ২০, ২০২০ / ০৫:১৬অপরাহ্ণ
সভাপতি পদে সালাউদ্দিনের বিপক্ষে লড়বেন বাদল রায়

দুদিন আগেই বাফুফে সভাপতি পদে নির্বাচন না করার ঘোষণা দিয়েছেন তরফদার রুহুল আমীন। তাঁর সিদ্ধান্তকে সম্মান জানিয়ে আবারও সভাপতি পদে নির্বাচন করার ঘোষণা দেন বর্তমান সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন। তাতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সালাউদ্দিনের জয়ের সম্ভাবনা জাগে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তা আর হচ্ছে না। সালাউদ্দিনের বিপক্ষে সভাপতি পদে লড়াইয়ের ঘোষণা দিয়েছেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সহসভাপতি বাদল রায়।

আজ বৃহস্পতিবার মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে এ ঘোষণা দিয়েছেন বাদল রায়। সাবেক এই তারকা বলেন, ‘আমি নতুন জীবন নি‌য়ে এসেছি। এ অবস্থায় ফুটবলের উন্নয়নে কাজ করার চেষ্টা ক‌রি। ভালো-খারাপ সব সময়ই থা‌কি। সাফ ফুটব‌লে তার প্রমাণও আছে। ফুটব‌লের খারাপ কিছু আমার সহ্য হয় না। কী পেলাম? কা‌জে ফির‌তে চাইলাম। ৩৮০ উপ‌জেলায় হা‌ন্টিং করলাম। প‌রিকল্পনা নিলাম। বহুবার বস‌তে ব‌লে‌ছি সালাউদ্দিন ভাইকে। একা‌ডে‌মি করার আমার প্রস্তাব ছিল। তৈরিও করেছিলাম। দুঃখ লাগে, সেটা হারালাম। সি‌লে‌টে অ-১৬ দল চ্যা‌ম্পিয়ন হলো। সবাই পরে ‌হারি‌য়ে গেল।’

এরপর তরফদার রুহুল আমীনের নির্বাচন থেকে সরে যাওয়ার প্রসঙ্গ টেনে বাদল রায় বলেন, ‘ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে তরফদার রুহুল আমীন সরে গেছেন। আমি তো মরি নাই। কেউ যদি সভাপতি পদে না দাঁড়ান, তাহলে আমিই দাঁড়াব।’

সহসভাপতি আরো বলেন, ‘তরফদার রুহুল আমীন তৃণমূলের ফুটবল, ফুটবলারদের নিয়ে অনেক কাজ করেছেন। এ জন্য আমি উনাকে ধন্যবাদ জানাই। কারণ, আমিও তৃণমূল থেকে উঠে এসেছি। তারকা ফুটবলার হয়েছি। এটা অস্বীকার করছি না, সালাউদ্দিন ভাই আমাদের চেয়ে অনেক বড় তারকা। আমি ১২ বছর উনার সঙ্গে সংসার করেছি।

উনি ফুটবলের উন্নতি চান না। তাঁর মায়া কেবল ওই চেয়ারের প্রতি। কিন্তু উনার সাংগঠনিক দক্ষতা কখনই ভালো ছিল না। আমি, সালাম, এনায়েত, সান্টু, বাবলু, মহসিন আমরাও খেলেছি। মোহামেডানের মতো বড় ক্লাবে খেলেছি। এই ক্লাব অনেক ফুটবলার তৈরি করেছে। এ ছাড়া শেখ কামালকে প্রকৃত অর্থে সম্মান জানিয়েছেন তরফদার রুহুল আমীন, সালাউদ্দিন ভাই নন। রুহুল আমীন তিনবার শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্লাব কাপ টুর্নামেন্ট আয়োজন করেছেন। সালাউদ্দিন সাহেব নিম্নমানের দল এনে বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ করেছেন।’

এর আগে সোমবার নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়িয়ে রুহুল আমীন বলেন, ‘বাফুফের নির্বাচনকে কেন্দ্র করে চরম অস্থিরতা তৈরি হয়েছে। কাজী সালাউদ্দিনের পক্ষের লোকজন নানা ধরনের কথা বলছেন। আমার পক্ষের লোকজনও নানা ধরনের কথাবার্তা বলছেন। তাই মনে হয়েছে, সভাপতি পদে আমার নির্বাচন করাটা ফুটবলের জন্য শুভ হবে না। আমি সভাপতি পদে নির্বাচন করব না, এটা আমার ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত। নির্বাচন সবার গণতান্ত্রিক অধিকার। আমি সভাপতি পদে নির্বাচন না করলেও নির্বাচনের মাঠে থাকছি। কারা কোন পদে নির্বাচন করবে, সেটা আমরা পরে ঠিক করব।’

তরফদার রুহুল আমীনকে ধন্যবাদ জানিয়ে বাফুফে সাভাপতি কাজী সালাউদ্দিন বলেন, ‘আমি ওনাকে ধন্যবাদ জানাই যে আমার ওপর আস্থাটা আছে বলে। আমার এটাই বলার আছে, তিনি আমার সঙ্গে কাজ করেছেন। ওনার সঙ্গে আমার ব্যক্তিগত কোনো শত্রুতা নেই।’

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন