জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে মাশরাফিই অধিনায়ক

প্রকাশিত: ফেব্রু ১৯, ২০২০ / ০৬:০২অপরাহ্ণ
জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে মাশরাফিই অধিনায়ক

২০১৪ সালের নভেম্বরে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজেই মুশফিকুর রহিমকে সরিয়ে ওয়ানডে অধিনায়কের দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল মাশরাফী বিন মোর্ত্তজাকে। প্রায় ৬ বছর বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দেয়ার পর সরিয়ে দেয়া হচ্ছে তাকে। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেছেন, মার্চে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচের সিরিজ শেষে ঘোষণা করা হবে নতুন অধিনায়কের নাম।

বিসিবি কার্যালয়ে বুধবার রুদ্ধদ্বার বৈঠক শেষে নাজমুল হাসান বলেন, ‘আমার ধারণা মাশরাফী এই সিরিজটায় অবশ্যই থাকছে। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে খেলবে। ও যদি ফিট না হয় সেটা অন্য কথা। ওর জন্য আমরা অতটা কড়াকড়ি করতে যাচ্ছি না। তবে খুব শিগগিরই আমাদের সিদ্ধান্ত নিতে হবে সামনে যে বিশ্বকাপটা আছে সেটার জন্য আমরা দল ও অধিনায়ক দুই বছর আগেই ‍ঠিক করে ফেলব।’

‘আমার হাতে খুব বেশি সময় নেই। খুব শিগগিরই এই সিদ্ধান্ত নিতে হবে। আমার তো মনে হয় একমাসের মধ্যে এ ব্যাপারে ক্লিয়ার কাট সিদ্ধান্ত দিতে পারব। এই সিরিজটা পর্যন্ত আমরা অপেক্ষা করছি। তারপর আমরা আমাদের সিদ্ধান্ত নেব। জিম্বাবুয়ে সিরিজে মাশরাফী অধিনায়ক হিসেবে খেলছে। এখনো ও অধিনায়ক আছে।’

জিম্বাবুয়ে সিরিজ শেষে জাতীয় দলে থাকতে হলে মাশরাফীর ক্ষেত্রে মূল্যায়ন করা হবে কেবল পারফরম্যান্সই। দ্বিতীয় মেয়াদে টি-টুয়েন্টি ও ওয়ানডে সংস্করণে অধিনায়ক করা হয়েছিল মাশরাফীকে।

২০১৭ সালে ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত সংস্করণ থেকে অবসর নিলেও ম্যাশ চালিয়ে যান ওয়ানডে ক্রিকেট। এপর্যন্ত ৮৫ ওয়ানডেতে নেতৃত্ব দিয়ে ৪৭টি জয় এনে দিয়েছেন বাংলাদেশকে।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে অবসর প্রসঙ্গে এখনো সরাসরি কিছু বলেননি মাশরাফী। ক্রিকেটকে কখন ‘বিদায়’ বলবেন সে সিদ্ধান্তটা নিজের কাছেই রেখে দিয়েছেন ৫০ ওভারের ক্রিকেটে বাংলাদেশের সফলতম অধিনায়ক।

বিপিএলের পর ক্রিকেটের সঙ্গে যোগাযোগ কিছুদিন বিচ্ছিন্ন ছিল মাশরাফীর। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজ শুরুর আগে মাঠমুখী হয়েছেন এ পেসার।

সপ্তাহে চার-পাঁচ দিন আসছেন স্টেডিয়ামে। একা একাই প্রস্তুত করছেন নিজেকে। ১ মার্চ সিলেট আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে শুরু হবে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টাইগারদের তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন