সন্ত্রাসী-দুর্নীতিবাজরাও আওয়ামী লীগের সদস্যপদ পাবেন না: ওবায়দুল কাদের

‘দুষ্টু গরুর চেয়ে শূন্য গোয়াল ভালো’- মন্তব্য করে আওযামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘চিহ্নিত সন্ত্রাসী, দুর্নীতিবাজ, স্বাধীনতাবিরোধী ও সাম্প্রদায়িক শক্তির কেউ আওয়ামী লীগের সদস্য হতে পারবেন না। আমরা কোয়ালিটি দেখবো। জনগণের কাছে যারা অগ্রহণযোগ্য, ভালো মানুষ নন, এসব মানুষকে আওয়ামী লীগের কোনো প্রয়োজন নেই।’

বৃহস্পতিবার বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ দক্ষিণের কর্মিসভায় এসব কথা বলেন তিনি।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘দলের শৃঙ্খলার বিষয়টি আমাদের নিশ্চিত করতে হবে। শৃঙ্খলা ছাড়া দলের গতিশীলতা বাড়বে না, দলের কর্মকাণ্ড বাধাগ্রস্ত হবে। কাজেই দলের শৃঙ্খলার ক্ষেত্রে খুবই মনোযোগী, সাবধান ও সতর্ক হতে হবে। আর এজন্য প্রত্যেক ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে আপনারা কর্মিসভা করবেন।’

দলের সদস্য করার ক্ষেত্রে সতর্ক হওয়ার পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, ‘আমাদের মনে রাখতে হবে, যাকে তাকে আওয়ামী লীগের সদস্য পদ দিতে পারবো না। নির্বাচনের সময় জোয়ারে অনেকেই আওয়ামী লীগ ও নৌকার পক্ষে মিছিল করেছেন। সবাইকে আমরা অ্যাকোমোডেট করতে পারবেন কি না, সেটা ভাবতে হবে। দলকে খারাপ লোক থেকে মুক্ত রাখতে হবে। দলে বিশুদ্ধ রক্ত সঞ্চার করতে চাই, দূষিত রক্তের কোনো প্রয়োজন নেই। এমন কেউ যেন না আসতে পারেন, সে ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে ও ব্যবস্থা নিতে হবে।’

সরকারের বিরুদ্ধে নানা গুজব ছড়ানো হচ্ছে, এমন মন্তব্য করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘দৃশ্যপট যতোই দুর্বল হোক, তলে তলে ষড়যন্ত্র বাড়ছে। সরকারকে বিপদে ফেলতে গুজবের ডালপালা বিস্তার করছে। পদ্মা সেতু নিজস্ব অর্থায়নে হচ্ছে, এটা তারা সহ্য করতে পারছেন না, গায়ে জ্বালা ধরছে। তাই তারা বলেন, ‘এক লাখ মানুষের মাথা ও রক্তের প্রয়োজন।’ এসব অপপ্রচারের বিরুদ্ধে ফেসবুকে, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অ্যাকটিভ হতে হবে। সর্বমুখী সাইবার অ্যাটাক হচ্ছে। এরও পাল্টা জবাব দিতে হবে। অপশক্তির অপপ্রচারের বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যেতে হবে। গত নির্বাচনে সাইবার অ্যাটাক করতে না পারায় শন্তিপূর্ণ নির্বাচন হয়েছে। আজকের এই শান্তিপূর্ণ অবস্থা সব সময় এক থাকবে, এমন মনে করার কিছু নেই। নীরবতার মধ্যে হলি আর্টিজান ঘটবে না, এ কথা মনে করার কিছু নেই। সতর্ক থাকতে হবে। সাহস নিয়ে এগিয়ে যাবেন।’

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত