জাতীয় দলের খেলোয়াড়দের ‘যুব ক্রিকেটারদের কাছ থেকে শেখার সময় হয়েছে’?

প্রকাশিত: ফেব্রু ১০, ২০২০ / ০৬:৪৪অপরাহ্ণ
জাতীয় দলের খেলোয়াড়দের ‘যুব ক্রিকেটারদের কাছ থেকে শেখার সময় হয়েছে’?

‘তৃতীয় দিনের খেলা শেষে আমরা সবাই ফাইনাল দেখতে বসে ছিলাম টিভির সামনে। ভীষণ টেনশনই হচ্ছিল কী হয়, কী হয় ভেবে! যখন ৩০ রান দরকার ছিল, অনেকগুলো ডট বলে গেছে, ভাবছিলাম পারবে তো?’- টিভির সামনে বসে অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের ফাইনাল দেখার ব্যাপারে এ কথাগুলোই বলেছেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের টেস্ট অধিনায়ক মুমিনুল হক।

রোববার রাওয়ালপিন্ডি টেস্টে দিনের শেষ বিকেলে নাসিম শাহর হ্যাটট্রিকে মাত্র ২ রানে ৪ উইকেট হারায় বাংলাদেশ। যা পুরোপুরি ব্যাকফুটে ঠেলে দেয় দলকে, জাগিয়ে তোলে ইনিংস পরাজয়ের শঙ্কা।

মাঠের হতাশা ভুলে টিভিতে সরাসরি বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ দলের বিশ্বকাপ জয়ের ম্যাচ দেখেছেন মুমিনুল হক, তামিম ইকবাল, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদরা।

আজ ম্যাচের চতুর্থ দিন সকালে ইনিংস পরাজয় এড়াতে খেলতে নেমে প্রথম ওভারেই আউট হয়েছেন মুমিনুল। বাংলাদেশ দল অলআউট হয়েছে ১৬৮ রানে। ইনিংস ও ৪৪ রানের বড় ব্যবধানের পরাজয়ে পূরণ হয়েছে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপে ইনিংস পরাজয়ের হ্যাটট্রিক।

অথচ ১২ ঘণ্টা আগেই দেশের ইতিহাসের অন্যতম সেরা সাফল্য বয়ে এনেছিলো বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৯ ক্রিকেট দল। তাদের দেখাদেখি ভালো কিছু করার পরিবর্তে ভরাডুবিই হয়েছে জাতীয় দলের। তবে কি এখন যুব ক্রিকেটারদের কাছ থেকে জাতীয় দলের খেলোয়াড়দের শেখার সময় হয়েছে?

ইনিংস ব্যবধানে হারের পর সংবাদ সম্মেলনে এ প্রশ্নের মুখোমুখি হলেন মুমিনুল হক। উত্তরে তিনি বলেন, ‘অবশ্যই! আপনি যদি কিছু শিখতে চান, তাহলে যেকোনো জায়গা থেকেই শিখতে পারেন। সেটা হোক জুনিয়র বা সিনিয়র দল।

আমি মনে করি, অনূর্ধ্ব-১৯ দল আমাদের দেখিয়েছে, কীভাবে ভালো ফলাফল পেতে হয়। ওরা সত্যিই অনেক ভালো করেছে। আমি ওদের অভিনন্দন জানাই।’

জাতীয় দলের টেস্ট ম্যাচের পরের সংবাদ সম্মেলন হলেও, বারবার ঘুরেফিরে এসেছে অনূর্ধ্ব-১৯ দলের প্রসঙ্গ। যেসবের উত্তর দিতে বেশ বিব্রতকর পরিস্থিতিতেই পড়তে হয়েছে মুমিনুলকে। তবে বর্তমান যুব দলের ইতিবাচক দিকও তুলে ধরেন তিনি। মুমিনুলের বিশ্বাস, এই ব্যাচ থেকে অন্তত ৬-৭ জন ভালো ক্রিকেটার পাবে বাংলাদেশ।

তিনি বলেন, ‘আমার কাছে মনে হয়, অনূর্ধ্ব-১৯ দলের ওরা অনেক বেশি ক্ষুধার্ত ছিলো। আর এ দলের ইতিবাচক দিকটা হলো, ওরা গত দুই বছর ধরে একসঙ্গেই ছিলো। যে কারণে ওদের পারস্পরিক সম্পর্কটা অনেক ভালো।

আর একটা বিষয় হলো, আমার কাছে এটাই বাংলাদেশের ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় অর্জন। এর চেয়ে বড় কিছু এখন আর হতে পারে না। আমার বিশ্বাস, এ বিশ্বকাপের পর বাংলাদেশ দল অন্তত ৬-৭ ভালো ক্রিকেটার পাবে।’

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন