চাঁদপুর সয়লাব অসময়ের ইলিশে

প্রকাশিত: জানু ৩১, ২০২০ / ১১:১১পূর্বাহ্ণ
চাঁদপুর সয়লাব অসময়ের ইলিশে

অসময়ে ইলিশে সয়লাব চাঁদপুরের ইলিশ বাজার। বিগত দিনগুলোতে শীতের এই সময়ে নদীতে ইলিশ সাধারণত পাওয়া যায় না। তবে ক্রেতাদের মাঝে ইলিশের চাহিদা কম থাকায় দাম কিছুটা কম। এদিকে অসময়ে বাজারে ইলিশ আসায় মৌসুমে ইলিশ পাওয়া নিয়ে শঙ্কা প্রকাশ করছেন ব্যবসায়ীরা।

তবে ইলিশ গবেষকদের দাবি, দীর্ঘদিন সঠিকভাবে জাটকা ও মা-ইলিশ রক্ষা কার্যক্রম পরিচালনার ফলে অসময়েও ইলিশ পাচ্ছেন জেলেরা। ইলিশ রক্ষা কার্যক্রম অব্যাহত থাকলে ভবিষ্যতে সারাবছরই ইলিশ পাওয়া যাবে বলে আশা করছেন তারা।

দেশের অন্যতম বড় পাইকারি ইলিশের বাজার চাঁদপুরের বড়স্টেশন মাছঘাটে গিয়ে দেখা গেছে, ইলিশ নিয়ে ব্যস্ত সময় পাড় করছেন আড়ৎদার ও শ্রমিকরা। ভরা মৌসুমে ইলিশের আমদানিতে এই বাজারটি বেশ জমজমাট থাকে। তবে সেই ধারার সঙ্গে এবার যোগ হয়েছে নতুনমাত্রা। ইলিশের মৌসুম না হলেও এই শীতে ইলিশের আমদানি বেশি হওয়ায় জমজমাট মাছের আড়ৎ। প্রতিদিন এ আড়তে ৬০০-৭০০ মণ ইলিশ আমদানি হচ্ছে।

ব্যবসায়ীরা বলেন, চাঁদপুরের পদ্মা-মেঘনায় জেলেদের জালে ইলিশ ধরা না পড়লেও দক্ষিণাঞ্চলে ইলিশ পড়ছে বেশ। সাগর মোহনায় জেলেদের জালে ধরা পড়া এসব ইলিশ চাঁদপুরের বাজারে সরবরাহ হচ্ছে। অসময়ে বাজারে ইলিশ আসায় খুশি ব্যবসায়ীরা। তবে বাজারে অন্যান্য মাছের চাহিদা বেশি থাকায় দাম কিছুটা কম বলে জানান তারা।

বর্তমানে চাঁদপুর মৎস্য আড়তে এক কেজি মাপের ইলিশ ৭০০ থেকে সাড়ে ৭০০ টাকা, ৮০০ থেকে ৯০০ গ্রামের ইলিশ কেজিপ্রতি ৬০০ থেকে ৭০০ টাকা, ৪০০ থেকে ৫০০ গ্রামের ইলিশ কেজিপ্রতি ৪০০ থেকে সাড়ে ৪০০ টাকা বিক্রি হচ্ছে। এসব ইলিশ রাজধানী ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে পাঠানো হচ্ছে।

চাঁদপুর জেলা মৎস্য বণিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক শবেবরাত বলেন, অন্যান্য বছরের তুলনায় এ বছর শীতের মৌসুমে প্রচুর ইলিশ আমদানি হচ্ছে বাজারে। আমদানি অনুযায়ী ক্রেতাদের চাহিদা নেই তেমন একটা। তাই ইলিশের দাম এখন সস্তা যাচ্ছে। এভাবে অসময়ে ইলিশ ধরা পড়ায় মূল মৌসুমে নদীতে ইলিশ পাওয়া নিয়ে আমরা শঙ্কিত।

তবে বাংলাদেশ মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউট চাঁদপুর নদী কেন্দ্রের মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা ও ইলিশ গবেষক ড. আনিছুর রহমান ইলিশ ব্যবসায়ীদের শঙ্কার কথা উড়িয়ে দিয়ে সুখবর জানাচ্ছেন। তিনি বলেন, নদী ও সাগরে ইলিশ সংরক্ষণে সরকারের নানা উদ্যোগের কারণে এখন ইলিশ মিলছে। এ নিয়ে শঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। ইলিশ সংরক্ষণের ধারাবাহিকতা বজায়ে থাকলে ভবিষ্যতে সারাবছরই নদীতে ইলিশ পাওয়া যাবে বলে দাবি করেন এই ইলিশ গবেষক।

গত বছর দেশে ইলিশের উৎপাদন ছিল, পাঁচ লাখ ১৭ হাজার মেট্রিক টন। এবার শীতেও ইলিশের আমদানি থাকায় উৎপাদনের সেই ধারা ছাড়িয়ে যাবে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন