সাকিবের শাস্তির কমানো নিয়ে সুখবর

প্রকাশিত: জানু ২৯, ২০২০ / ০৪:০৪অপরাহ্ণ
সাকিবের শাস্তির কমানো নিয়ে সুখবর

পাকিস্তান সফরে গিয়ে হোয়াইটওয়াশের লজ্জায় পড়তে হয়েছে টাইগারদের। জাতীয় ক্রিকেট দলে বিশ্বসেরা সাকিব আল হাসানের অনুপস্থিতি খুব বাজেভাবেই টের পাচ্ছে বাংলাদেশ।

জাতীয় সংসদের অধিবেশনেও সাকিবের নিষেধাজ্ঞার ব্যাপারে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের কঠোর সমালোচনা করেছেন সাংসদরা।

জাতীয় সংসদ অধিবেশনে মঙ্গলবার জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ফখরুল ইমাম বলেন, ‘আমাদের জন্য দুঃসংবাদ যে, আমাদের বিসিবির প্রভাবশালী সভাপতি (পাপন) পারলেন না আমাদের সাকিবকে ফেরাতে।

সাকিব এক বছর খেলার বাইরে থাকল এটা আমাদের বোধগম্য নয়, এর আগেও দেখেছি সভাপতি যারা ছিলেন দক্ষতার সঙ্গে চালিয়েছেন। আমি আশা করি, এটার শাস্তির কমানোর ব্যাপারে আরেকটু পদক্ষেপ নেয়া হবে।’

ক্রিকেটারদের পারফরম্যান্সে হতাশ সংসদ সদস্যরা : বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সাম্প্রতিক পারফরম্যান্সে হতাশা প্রকাশ করেছেন সংসদ সদস্যরা। কেউ কেউ প্রশ্ন তুলেছেন, যারা দেশের সম্মান বয়ে আনতে পারছেন না তাদের জন্য সুযোগ-সুবিধা না বাড়িয়ে যারা সম্মান বয়ে আনছেন তাদের দিকে নজর দেয়া উচিত। পাকিস্তানে তিন ম্যাচের টি ২০ ২-০তে হারার প্রসঙ্গ তুলে বলেন, ‘ক্রীড়াঙ্গন খুব একটা ভালো নেই। জানি না কি বিপর্যয় আমাদের ওপর দিয়ে যাচ্ছে।’

মঙ্গলবার জাতীয় সংসদে বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান (বিকেএসপি) বিল-২০২০’র ওপর জনমত যাচাই-বাছাই করার প্রস্তাব দিয়ে আলোচনাকালে একথা বলেন বিরোধী দলীয় সংসদ সদস্যরা। আলোচনায় অংশ নিয়ে জাতীয় পার্টির মুজিবুল হক বলেন, ‘যুব ফুটবল টিম সম্মান কুড়িয়ে আনছে। সম্প্রতি অলিম্পিকে বেশ কয়েকটা ইভেন্টে ছেলেমেয়েরা স্বর্ণপদক জয় করে এনেছে। যেগুলো আমাদের সম্মান আনছে, যেসব ছেলে-মেয়ে পুরস্কার আনছে তাদের পৃষ্ঠপোষকতা করা হোক। সময় এসেছে যারা কিছু আনতে পারে বা যারা কিছু দিতে পারে, যারা সম্মান বয়ে আনতে পারে তাদের গুরুত্ব দেয়া হোক। যারা সম্মান আনতে পারে না তাদের এত গুরুত্ব দেয়ার প্রয়োজন আছে বলে মনে করি না।’

পরে বিএনপির হারুনুর রশীদ বলেন, ‘ক্রীড়া শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বিলে উল্লেখযোগ্য বিশেষ কোনো দিক নেই। কিছুদিন আগে দেখলাম ক্রীড়াঙ্গনে ক্যাসিনো বিপ্লব চলছে। সেই ক্যাসিনো বিপ্লবে কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে, অভিযোগ আনা হয়েছে এইটুকুই শেষ।’ তিনি বলেন, ‘ক্রীড়াঙ্গনের অবস্থা খুব একটা ভালো নেই। যে কারণে এই বিলটি যে উদ্দেশে আনা হয়েছে তা আরও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে শক্তিশালী এবং মজবুত করার জন্য জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে উন্নতমানের ক্রীড়াবিদ তৈরি করতে পারি, এরকম বিল আনেন।

হারুন আরও বলেন, ‘ক্রিকেটে পাকিস্তানে টি ২০ সিরিজ হেরেছি আমরা। এটা আমাদের জন্য দুঃখজনক। ভারতেও হেরেছি। জানি না কি বিপর্যয় আমাদের ওপর দিয়ে যাচ্ছে। যে কারণে আমি মনে করি, বিকেএসপিতে আরও নজর দেন। অহেতুক উল্লেখযোগ্য উদ্দেশে কারণ ছাড়াই বিল নিয়ে আসছেন।’

জবাব দিতে গিয়ে যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী জাহিদ আহসান রাসেল বলেন, ‘অনেকেই বলেছেন মাঠের অভাবে ক্রীড়াঙ্গনে উল্লেখযোগ্য উন্নতি নেই। তাদের জানাতে চাই মাঠের অভাব মেটাতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় প্রতিটি জেলা পর্যায়ে ৪৯২টি শেখ রাসেল মিনি স্টেডিয়াম নির্মাণের লক্ষ্যে প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। এরই মধ্যে ১২৫টি নির্মাণ করতে সক্ষম হয়েছি। দ্বিতীয় পর্যায়ে আরও ১৬৭টি স্টেডিয়াম নির্মাণ করতে যাচ্ছি। অচিরেই সেই কাজ শুরু করতে পারব।’

তিনি বলেন, ‘ভারতে হোয়াইটওয়াশ হয়নি। সেখানে প্রথম টি ২০তে আমরা ভারতকে হারিয়েছি। এছাড়া গত বছর প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে দ্বিপাক্ষিক ট্রফি ছিনিয়ে এনেছি। আমাদেও খেলোয়াড়রা অলিম্পিকে ১৯টি গোল্ডসহ ১৪২টি পদক ছিনিয়ে এনেছে। কাজেই অগ্রগতি নেই কথাটি সঠিক না।’

এরপর সংশোধনী প্রস্তাবের আলোচনায় অংশ নিয়ে জাতীয় পার্টির প্রেসিডিয়াম সদস্য ফখরুল ইমাম বলেন, ‘আমাদের জন্য দুঃসংবাদ। আমাদের বিসিবির প্রভাবশালী সভাপতি পারলেন না আমাদের সাকিবকে ফেরাতে। সাকিব এক বছর খেলার বাইরে থাকল এটা আমাদের বোধগম্য নয়, এর আগেও দেখেছি সভাপতি যারা ছিলেন দক্ষতার সঙ্গে চালিয়েছেন। আশা করি, শাস্তি কমানোর ব্যাপারে আরেকটু পদক্ষেপ নেয়া উচিত হবে।’

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন