চায়ের পর এবার সাইকেল চালিয়ে প্রচারণায় আতিকুল

প্রকাশিত: জানু ২৫, ২০২০ / ০৮:৪০অপরাহ্ণ
চায়ের পর এবার সাইকেল চালিয়ে প্রচারণায় আতিকুল

হালকা শৈত্যপ্রবাহে উত্তাপ ছড়াচ্ছে ঢাকা সিটি নির্বাচন। সে প্রচারণায় একের পর এক চমক দেখাচ্ছেন ঢাকা উত্তরে আওয়ামী মেয়র প্রার্থী আতিকুল ইসলাম।

শনিবার (২৫ জানুয়ারি) বেলা ১১টায় রাজধানীর বারিধারার কালাচাঁদপুর এলাকার হেলথ ক্লাবে পথসভার মাধ্যমে দিনের নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করেন তিনি। তবে প্রচারণায় অংশ নেন সাইকেল চালিয়ে। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন তার প্রচারণাকর্মীরা।

কেনো সাইকেলে প্রচারণা চালাচ্ছেন এমন প্রশ্নের জবাবে আতিকুল ইসলাম বলেন, বায়ুদূষণ কমাতে আমরা যদি সাইকেল লেন করতে পারি এবং সাইকেল চালানোয় জোর দিতে পারি তাহলে আমাদের পরিবেশের উন্নয়ন করা সম্ভব।

উন্নত বিশ্বে সবাই সাইকেল চালিয়েই অফিসে যাচ্ছে। এতে কারো কোনো ক্ষতিও হচ্ছে না। আমি সুযোগ পেলে এখন থেকে অবশ্যই সব নতুন রাস্তায় তরুণদের জন্য সাইকেল লেন করে দেব। আমরা সবাই চাই সুস্থ থাকতে। আর সুস্থ থাকতে হলে আগে পরিবেশবান্ধব হতে হবে।

তিনি আরও বলেন, সাইকেল চালালে বিষণ্নতা দূর হয়। তাই সবার উচিত বিশেষ করে তরুণদের বেশি বেশি সাইকেল চালানো।

মেয়র নির্বাচিত হলে আধুনিক, সবুজ ও গতিশীল ঢাকা গড়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন আতিকুল ইসলাম। গুলশান স্বাস্থ্যক্লাব পার্কে গণসংযোগকালে তিনি বলেন, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশন হবে আধুনিক, গতিময়, সচল, সুস্থ ও মানবিক ঢাকা।

নাগরিকদের নিরাপত্তা যেমন নিশ্চিত করা হবে, তেমনি খেলাধুলার জন্য থাকবে পর্যাপ্ত মাঠ ও পার্ক। ভোটে যদি জয়লাভ করতে পারি তাহলে এসব বাস্তবায়নের চেষ্টা করবো। আমি চাই আমাদের আগামী প্রজন্ম বেড়ে উঠকু সুস্থতায়।

ইশতেহার প্রসঙ্গে আতিকুল ইসলাম বলেন, ‘রবিবার আমার নির্বাচনী ইশতেহার দেব। সেখানে চমক থাকবে। থাকবে আধুনিক, সচল, সুস্থ ও মানবিক ঢাকার গড়ার অঙ্গীকার।’

আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়রপ্রার্থী বলেন, ‘আওয়ামী লীগ কথায় নয় কাজে বিশ্বাসী। আমি আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী হিসেবে বলতে পারি বিজয়ী হলে প্রতিটি প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করব ইনশাল্লাহ। আর তাই আগামী ১ ফেব্রুয়ারি নৌকা প্রতীকে ভোট দিয়ে আমাকে বিজয়ী করবেন আমি বিশ্বাস করি।’

নেতাকর্মীদের উদ্দেশে আতিকুল ইসলাম বলেন, নির্বাচনী প্রচারণা চালাতে গিয়ে কোনোভাবেই জনদুর্ভোগ সৃষ্টি করা চলবে না। যানজট যেন সৃষ্টি না হয় সেদিকে নেতাকর্মীদের খেয়াল রাখতে হবে। মানুষের দুর্ভোগ হয় এমন কোনো কাজ নেতা-কর্মীরা করবেন না। আমি নির্বাচিত হলে জনগণের সেবক হয়ে কাজ করতে চাই।

এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন- ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ বজলুর রহমান এবং সাধারণ সম্পাদক এস এম মান্নান কচি প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, এর আগে তরুণদের সঙ্গে ক্রিকেট খেলে কিংবা চা দোকানে বসে ভোটারদের চা বানিয়ে দিয়ে এবং গান শুনিয়েও ব্যতিক্রমী প্রচারণা চালিয়ে সবার নজর কাড়েন আতিকুল ইসলাম।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন