‘অ’শ্লীল ভিডিও’ দেখার কারণে কাশ্মীরে ইন্টারনেট বন্ধ!

প্রকাশিত: জানু ১৯, ২০২০ / ০৬:৫৯অপরাহ্ণ
‘অ’শ্লীল ভিডিও’ দেখার কারণে কাশ্মীরে ইন্টারনেট বন্ধ!

‘অ’শ্লীল ভিডিও’ দেখার জন্যই জম্মু-কাশ্মীরে ইন্টারনেট বন্ধ রাখা হয়েছিল বলে মন্তব্য করেছেন ভারতের নীতি আয়োগের সদস্য ভি কে সারস্বত। তিনি বলেছেন, ‘এতে কোনো ধরনের আর্থিক ক্ষ’তি হয়নি।’

ভারতীয় সংবাদমাধ্যম ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের খবরে বলা হয়, গতকাল শনিবার গুজরাটে ধীরুভাই আম্বানি ইন্সটিটিউট অব ইনফরমেশন অ্যান্ড কমিউনিকেশন টেকনোলজি-র সমাবর্তন অনুষ্ঠানে গিয়ে এ মন্তব্য করেন তিনি।

ভারতের শীর্ষ আদালতের নির্দেশের পর ধীরে ধীরে জম্মু-কাশ্মীরে মোবাইল ইন্টারনেট পরিষেবা হতে শুরু করেছে। আর এই ছয় মাসে ইন্টারনেট বন্ধ থাকার কারণে, কাশ্মীরের প্রায় ১০ হাজার কোটি টাকার ক্ষ’তি হয়েছে। কিন্তু গত ৫ আগস্ট থেকে জম্মু-কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা বাতিলের পর রাজ্যজুড়ে ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ করার পক্ষে সাফাই গেয়েছেন নীতি আয়োগের সদস্য ভি কে সারস্বত। আর এই ভারতজুড়ে আবার একবার সমালোচনার মুখে কেন্দ্রীয় সরকার।

ভি কে সারস্বত বলেন, ‘৩৭০ ধারা বাতিলের পর, জম্মু-কাশ্মীরে দীর্ঘ ছয় মাস ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ থাকার পরেও কোনো আর্থিক ক্ষতি হয়নি। কাশ্মীরে ইন্টারটেন ব্যবহার হয় শুধু অশালীন ও অশ্লীল ভিডিও দেখার জন্য।’

এর আগে নীতি আয়োগের এই সদস্য বলেছিলেন, ‘৩৭০ ধারা বাতিলের পর, জম্মু-কাশ্মীরে আইন-শৃঙ্খলা বজায় রাখার জন্য ইন্টারনেট পরিষেবা বন্ধ করা হয়েছে।’

একইসঙ্গে তিনি বলেন, ‘কাশ্মীরের রাজনৈতিক নেতা-নেত্রীরা দিল্লির মতো আন্দোলন গড়ে তুলতে ইন্টারনেট ও সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলো ব্যবহার করতে চান। তার এই মন্তব্যের জেরে ইতিমধ্যে ভারতজুড়ে তীব্র স’মা’লোচনার ঝ’ড় উঠেছে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন