গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে নৌকার প্রচারণায়

আগামী ৩০ জানুয়ারি অনুষ্ঠিতব্য ঢাকার দুই সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন সামনে রেখে নৌকা মার্কার প্রচারণায় গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। দুই মেয়র প্রার্থীসহ আওয়ামী লীগ ও ১৪ দলের গণসংযোগ ও পথসভায় জনগণ স্বতঃস্ফূর্তভাবে সাড়া দিচ্ছে।

এতে স্পষ্ট হচ্ছে যে, মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের শক্তির দুই মেয়র প্রার্থী ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস ও আতিকুল ইসলাম নির্বাচনে বিজয়ী হবেন।

শুক্রবার সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগ প্রেসিডিয়াম সদস্য মোহাম্মদ নাসিমের ধানমন্ডিস্থ বাসভবনে সিটি নির্বাচন নিয়ে ১৪ দলের পর্যালোচনা সভায় এমন রিপোর্ট উঠে এসেছে। ১৪ দলের সমন্বয়ক মোহাম্মদ নাসিমের সঙ্গে সিটি নির্বাচনে নিয়ে গঠিত দুটি প্রচারণা টিমের এই পর্যালোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

বৈঠক শেষে কেন্দ্রীয় ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম সাংবাদিকদের বলেন, হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের দ্বিতীয় বৃহত্তম ধর্মীয় উৎসব সরস্বতী পূজা। নির্বাচন কমিশনের প্রতি অনুরোধ জানাবো- অবিলম্বে হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের সংগঠনের নেতৃবৃন্দের সঙ্গে বৈঠক করে আলোচনার মাধ্যমে সন্তোষজনক সমাধান বের করুন।

হিন্দু ভাই-বোনদের মনে মনঃকষ্ট যেন না থাকে। এদিকে বৈঠকে প্রচারণা আরও জোরদার করতে করার সিদ্ধান্ত হয়। শুধু রাস্তাঘাট ও দোকানে নয়, মানুষের ঘরে ঘরে নিয়ে ভোট চাওয়া হবে।

মোহাম্মদ নাসিমের সভাপতিত্বে বৈঠকে অন্যদের মধ্যে সাম্যবাদী দলের সাধারণ সম্পাদক দিলীপ বড়ূয়া, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সদস্য মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম, জাতীয় পার্টির (জেপি) সাধারণ সম্পাদক শেখ শহীদুল ইসলাম, জাসদের সাধারণ সম্পাদক শিরীন আখতার, বাংলাদেশ জাসদের সভাপতি শরীফ নূরুল আম্বিয়া,

নেতা নামজুল হক প্রধান, গণতন্ত্রী পার্টির সাধারণ সম্পাদক ডা. শাহাদাত হোসেন, গণআজাদী লীগের সভাপতি এসকে শিকদার, জাতীয় পার্টির (জেপি) প্রেসিডিয়াম সদস্য এজাজ আহমেদ মুক্তা, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন, বাসদের রেজাউর রশীদ খান, জাসদ নেতা নাদের চৌধুরী,

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ, সাবেক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. দিলীপ রায়, মহানগর আওয়ামী লীগ নেতা কামাল চৌধুরী, জাসদ মহানগর নেতা মীর হোসেন আক্তার, ওয়ার্কার্স পার্টির মহানগর নেতা আবুল হোসেন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত