মাদ্রাসার সভাপতি হতে না পেরে ভাঙ’চুর ও লু’টপাট

প্রকাশিত: জানু ১৬, ২০২০ / ১০:৫৬পূর্বাহ্ণ
মাদ্রাসার সভাপতি হতে না পেরে ভাঙ’চুর ও লু’টপাট

পিরোজপুরের ইন্দুরকানীতে মাদ্রাসা ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি হতে না পেরে যুবলীগ নেতার নেতৃত্বে মাদ্রাসায় ভাং’চু’র ও লু’ট’পা’টের অ’ভিযোগ পাওয়া গেছে।

বুধবার (১৫ জানুয়ারি) উপজেলার বালিপাড়া ইউনিয়নের উত্তর-পশ্চিম কলারন আজাহার আলী দাখিল মাদ্রাসায় এ ঘটনা ঘটে।

মাদ্রাসা ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত সোমবার উপজেলা নির্বাহী অফিসার হোসাইন মুহাম্মদ আল মুজাহিদের উপস্থিতিতে ব্যবস্থাপনা কমিটির নতুন সভাপতি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। এ নির্বাচনে হেরে শিক্ষকদের হু’ম’কি দিতে থাকেন। মিজানের ভ’য়ে প্রতিষ্ঠান প্রধান মঙ্গলবার মাদ্রাসাটি বন্ধ রাখেন। আবারও বুধবার বেলা ১১টার দিকে মাদ্রাসার অফিস কক্ষে এসে মাদ্রাসার সুপার আব্দুস সালামের কাছে নির্বাচন সংক্রান্ত কাজগপত্র দেখতে চান মিজান।

কটি কপি তাকে দিবেন বলে আশ্বস্ত করেন। মিজান চলে গিয়ে তার লোকজন নিয়ে ফিরে এসে হা’ম’লা চালায়। মাদ্রাসা ভবনে সবাইকে অবরুদ্ধ করে শ্রেণি ও অফিস কক্ষে ভাং’চু’র করেন মিজান ও তার লোকজন। এ সময় মিজানের হাতে বড় একটি রামদা ছিল বলে অ’ভি’যোগ করেন মাদ্রাসা সুপার আব্দুস সালাম।

এ বিষয়ে উত্তর-পশ্চিম কলারন আজাহার আলী দাখিল মাদ্রাসার সুপার মাওলানা মো. আব্দুস সালাম জানান, বেশকিছু লোকজন নিয়ে মাদ্রাসায় এসে হা’ম’লা চালান এই যুবলীগ নেতা। এ সময় মাদ্রাসার বেশ কয়েকটি শ্রেণিকক্ষের আসবাবপত্র ভাং’চু’র করেন মিজান ও তার লোকজন।

অ’ভি’যুক্ত মিজানুর রহমান জানান, আমার নেতৃত্বে মাদ্রাসায় কোনো হা’ম’লার ঘটনা ঘটেনি।

ইন্দুরকানী থানার ওসি মো. হাবিবুর রহমান জানান, মাদ্রাসায় হামলার ঘটনা শুনে পুলিশ পাঠিয়েছিলাম। মাদ্রাসায় কয়েকটি চেয়ার ভাং’চু’রের খবর পেয়েছি। তবে পরিস্থিতি এখন শান্ত রয়েছে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন