সেই মিন্নির পরিবার মানছেই না সড়ক আইন!

প্রকাশিত: জানু ১৫, ২০২০ / ০৬:২৩অপরাহ্ণ
সেই মিন্নির পরিবার মানছেই না সড়ক আইন!

নতুন ‘সড়ক পরিবহন আইন, ২০১৮’ কার্যকর হয়েছে। বহুল আলোচিত এই আইনটি প্রণয়নের এক বছরেরও বেশি সময় পর বাস্তবায়ন হয়।

নতুন সড়ক আইনে, হেলমেট না পরলে জ’রি’মানা ২০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে সর্বোচ্চ ১০ হাজার টাকা করা হয়েছে। আর মোটরসাইকেলে তিনজন বসার বিধান নেই নতুন সড়ক আইনে।

তবে এই আইনের কোন তোয়াক্কা না করেই বরগুনার বহুল আলোচিত রিফাত হ’ত্যা মা’ম’লার অন্যতম ‘আ’সা’মি’ মিন্নিকে মোটরসাইকেলে তার বাবা ও চাচার সঙ্গে আদালত প্রাঙ্গনে দেখা গেছে। আর এই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হতেই বি’দ্রু’পের শি’কা’র হন মিন্নি।

নাজমুল হোসেন নামে একজন লিখেছেন, ‘সড়ক আইন-২০১৮’ এর তোয়াক্কা না করে হেলমেটবিহীন মোটরসাইকেলে তিনজন চলছে। তারা (একজন) আবার মহামান্য আদালতের নিকট জা’মি’ন প্রার্থী!

মোটরযান আইন ১৯৮৮ (সংশোধনী) অনুসারে, চালক ও যাত্রী দুজনের মাথায় অবশ্যই হেলমেট থাকতে হবে। এছাড়া হাতে গ্লাভস ও পায়ে জুতা পরে তবেই চালকের আসনে বসতে হবে। এসব আইন না মেনে মোটরসাইকেল চালালে পুলিশ যেকোনো সময় মা’ম’লা করতে পারবে।

এছাড়া নতুন সড়ক আইনে বলা হয়েছে, হেলমেটবিহীন মোটরসাইকেল চালালে সর্বোচ্চ ১০০০০ হাজার টাকা পর্যন্ত জ’রি’মানা করা হবে।

উল্লেখ্য, ২৬ জুন বরগুনা সরকারি কলেজের সামনে রিফাত হ’ত্যা’কা’ণ্ড ঘটে। ১ সেপ্টেম্বর বিকেলে ২৪ জনকে অভিযুক্ত করে প্রাপ্তবয়স্ক ও অপ্রাপ্তবয়স্ক এ দু ভাগে বিভক্ত করে আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করে পুলিশ। এর মধ্যে প্রাপ্তবয়স্ক ১০ জন এবং অপ্রাপ্তবয়স্ক ১৪ জন।

মা’ম’লার চার্জশিটভুক্ত প্রাপ্তবয়স্ক আ’সা’মি মো. মুসা এখনো প’লা’ত’ক রয়েছেন। এছাড়া নি’হ’ত রিফাতের স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নি ও অপ্রাপ্তবয়স্ক আসামি প্রিন্স মোল্লা উচ্চ আদালতের আদেশে এবং বরগুনার শিশু আদালতের আদেশে মারুফ মল্লিক এবং আরিয়ান হোসেন শ্রাবণ জা’মি’নে রয়েছেন। বাকি আসামিরা কা’রা’গা’রে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন