বিশেষ সুবিধা নিলে ঋণ পাবেন না খেলাপিরা: আপিল বিভাগ

ঋণখেলাপিদের নিয়মিত হওয়ার সুযোগ আপাতত বহাল রইল। বিশেষ সুবিধা সংক্রান্ত বাংলাদেশ ব্যাংকের জারিকৃত প্রজ্ঞাপনে হাইকোর্টের দেওয়া স্থিতাবস্থার উপর স্থগিতাদেশের মেয়াদ বাড়িয়েছে আপিল বিভাগ। প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন আপিল বিভাগ সোমবার এ আদেশ দেন।

আদালত বিশেষ সুবিধা সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপনের আইনগত বৈধতার প্রশ্নে জারিকৃত রুল দুই মাসের মধ্যে নিষ্পত্তি করতে হাইকোর্টকে নির্দেশ দিয়েছে। এ সময়ের মধ্যে ঋনখেলাপিরা বিশেষ সুবিধা ভোগ করলে অন্য কোন ব্যাংক থেকে আর ঋণ পাবেন না বলে জানিয়েছেন আদালত। আদেশের বিষয়টি জানান রিটকারী আইনজীবী মনজিল মোরসেদ।

ঋণখেলাপিদের বিশেষ সুবিধা দিয়ে গত ১৬ মে প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়। ওই প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, ঋণখেলাপিরা মাত্র দুই শতাংশ ডাউন পেমেন্ট দিয়েই ঋণ পুনঃতফসিল করতে পারবেন। পুনঃতফসিল হওয়া ঋণ পরিশোধে তারা সময় পাবেন টানা দশ বছর। এক্ষেত্রে প্রথম এক বছর কোনো কিস্তি দিতে হবে না।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের এই প্রজ্ঞাপনের কার্যকারিতা স্থগিত চেয়ে হাইকোর্টে সম্পূরক আবেদন করেন হিউম্যান রাইটস অ্যান্ড পিস ফর বাংলাদেশের পক্ষে আইনজীবী মনজিল মোরসেদ। গত ২১ মে হাইকোর্ট ওই প্রজ্ঞাপনের ওপর স্থিতাবস্থা জারি করে।

আদালত বলেন, ওই প্রজ্ঞাপন ‘দুষ্টের পালন, শিষ্টের দমন’ এর মতো। হাজার হাজার কোটি টাকা লোন নিয়ে যারা ব্যাংক লুট করে ফেলল তাদেরকেই যেন আবার দুধ-কলা দিয়ে পোষা হচ্ছে। এই সুবিধা দেওয়ার মাধ্যমে ব্যাংক থেকে আরো এক লাখ কোটি টাকা নিয়ে যাবে।

হাইকোর্টের এই স্থিতাবস্থার আদেশ স্থগিত চেয়ে আবেদন করে রাষ্ট্রপক্ষ। আবেদনের পক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও রিটকারীর পক্ষে মনজিল মোরসেদ শুনানি করেন।

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত