জোর করে ক্ষেতের ওপর দিয়ে নতুন রাস্তা নির্মাণ!

প্রকাশিত: জানু ৫, ২০২০ / ০৮:২৪অপরাহ্ণ
জোর করে ক্ষেতের ওপর দিয়ে নতুন রাস্তা নির্মাণ!

নওগাঁর ধামইরহাটে জোর করে নতুন রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে। ক্ষেতের ওপর দিয়ে রাস্তা করায় ফুঁ’সে ওঠে জমির মালিকরা।

বিষয়টি নিয়ে দুই পক্ষের মাঝে উ’ত্তে’জনা দেখা দেয়। পরবর্তীকালে পুলিশের উপস্থিতিতে জমির মালিকরা রাস্তা কেটে ফেলে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।

জানা গেছে, গত শনিবার সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত উপজেলার আলমপুর ইউনিয়নের অন্তর্গত আমাইতাড়া-আগ্রাদ্বিগুন সড়কের বস্তাবর কলঘর থেকে বস্তাবর দলাপাড়া (মিস্টারের বাড়ি) পর্যন্ত ফসলি জমির ওপর দিয়ে মাটি কেটে প্রায় ৫০০ মিটার নতুন রাস্তা নির্মাণ করে দলাপাড়া গ্রামবাসী। দলাপাড়ার নারী ও পুরুষ সম্মিলিতভাবে এ রাস্তা নির্মাণ করেন।

রোববার সকালে জমির মালিকরা একজোট হয়ে ওই রাস্তা কাটতে যায়। এতে দলাপাড়া গ্রামের মহিলারা জোটবদ্ধ হয়ে রাস্তা কাটতে বাধা প্রদান করলে উত্তেজনা দেখা দেয়। পরবর্তীকালে পুলিশ ও স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের প্রচেষ্টায় পরিস্থিতি শান্ত হয়।

রাস্তাটি নির্মাণ করার ফলে বীরগ্রামের কৃষক কামরুজ্জামান সরকারের প্রায় ৯৯ শতাংশ, মহররম দেওয়ান (ম্যাজিস্ট্রেট বলে পরিচিত)-এর প্রায় আড়াই একর জমির ওপর দিয়ে রাস্তা নির্মাণ করা হয়। এ ছাড়া বাবলু, করিম, মোস্তফা মাস্টার, হান্নান, মকবুল, মৃত আজব আলীর জমির কিছু অংশ রাস্তায় পড়েছে।

এ ব্যাপারে কৃষক মহররম দেওয়ান বলেন, আমরা জমির মালিক। অথচ আমাদের সঙ্গে কোনো প্রকার আলোচনা না করে জোর করে অবৈধভাবে রাস্তা নির্মাণের চেষ্টা করা হয়েছে।

স্থানীয় আলমপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো.ফজলুর রহমান বলেন, গায়ের জোরে সবকিছু করা যায় না। জমির মালিকদের না জানিয়ে গ্রামবাসী এ ধরনের কাজ করতে পারে না। কামরুজ্জামান সরকারের জমির ওপর যে রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছিল সেটি কে’টে ফেলা হয়েছে। বাকি অংশ জমির মালিকরা কেটে ফেলবে।

তিনি আরও বলেন, যে রাস্তা নির্মাণ করা হয়েছে তার মাত্র দেড়শ’ গজ পশ্চিমে ওই গ্রামে যাওয়ার একটি রেকর্ডিয় রাস্তা আছে। তবে সংস্কারের অভাবে রাস্তাটি চলাচলের অনুপযোগী হয়ে পড়েছে।

ধামইরহাট থানার ওসি মো. শামীম হাসান সরদার বলেন, অবৈধভাবে রাস্তা নির্মাণের চেষ্টা করা হয়েছিল। পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। পরে জমির মালিকরা মাটি কেটে চাষের ট্রাক্টর দিয়ে জমির সঙ্গে রাস্তা সমান করে দিয়েছে। এখন আর সেখানে কোনো রাস্তা নেই।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন