চা বিক্রেতা রাকিব সর্বস্রান্ত ৮ লক্ষ টাকার লোভে পরে

প্রকাশিত: জানু ৩, ২০২০ / ০২:১২অপরাহ্ণ
চা বিক্রেতা রাকিব সর্বস্রান্ত ৮ লক্ষ টাকার লোভে পরে

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর পৌর এলাকার আলীয়াবাদ বাজারের চা বিক্রেতা রাকিব মিয়াকে আচমকা ধণী হওয়ার স্বপ্ন দেখিয়ে এক প্রতারক চক্র হাতিয়ে নিয়েছে ৬৫ হাজার ৫০০টাকা।

লোভে পরে টাকা দিয়ে এখন চোখের পানিতে ভাসছে ওই চা বিক্রেতা। বৃহস্পতিবার রাত আটটার দিকে আলীয়াবাদ বাজারে এ ঘটনা ঘটেছে। এ খবর পেয়ে শতশত লোক ভীরজমে ওই চা বিক্রেতাকে দেখতে।

জানাযায়, রাকিব মিয়া পেশায় একজন চা বিক্রেতা, নবীনগর পৌর এলাকার আলীয়াবাদ বাজারে তার একটি চায়ের স্টল রয়েছে। তার বাবা হেলাল মিয়া কৃষিকাজ করেন।

বৃহস্পতিবার রাকিবের মোবাইলে একটি ম্যাসেজ আসে তার সিমে লটারিরর মাধ্যমে ৮লক্ষ টাকা পেয়েছে। আজকে (বৃহস্পতিবার) পাবে ৯৫ হাজার টাকা আর আগামীকাল (শুক্রবার) ব্যাংকের মাধ্যমে পাঠানো হবে ৭লক্ষ টাকা।

সেই টাকা পেতে সরকারী খরচ বাবধ ৮৫ হাজার টাকা আলাদা বিকাশ নাম্বারের মাধ্যমে আজকের মধ্যে পাঠাতে হবে, তবেই ব্যাংক থেকে ৭লক্ষ টাকা তুলতে পারবে। এই ম্যাসেজ পেয়ে রাকিব মহা খুশি হয়ে আলীয়াবাদ আশিক টেলিকম থেকে বিকাশের মাধ্যমে তিনটি নাম্বারে পাঠিয়ে দেন ৬৫ হাজার ৫০০টাকা।

আরেকটি নাম্বারে ২০হাজার টাকা পাঠানোর কথা জানালে, দোকানের মালিক আশিক জানতে চান, তুমি বার বার কোথায় টাকা পাঠাচ্ছো।

জবাবে রাকিব বলে আমার ভাই অসুস্থ তার কাছে পাঠাচ্ছি, পরে ওইসব নাম্বার গুলোতে ফোন করার পর নাম্বারগুলো বন্ধ পাওয়া যাওয়ার পরই বেড়িয়ে আসে আসল রহস্য। বিকাশের মাধ্যমে পাঠানো টাকা প্রতারক চক্র হাতিয়ে নিয়েছে এ কথা জানতে পেরে কান্নায় ভেঙ্গে পরে রাবিক।

এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। রাবিকের বাবা জানান, অনেক কষ্ট করে তাকে বিদেশ পাঠামো বলে ট্যাকা জমা করছিলাম, সেই ট্যাকা আজ সে প্রতারক চক্রকে না বুঝে দিয়ে দিল, কামডা করলো কি? এমন বেকুক মানু আছে দুনিয়াতে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন