বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে আবারো চালু মোবাইল নেটওয়ার্ক

প্রকাশিত: জানু ১, ২০২০ / ১০:৩৮অপরাহ্ণ
বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে আবারো চালু মোবাইল নেটওয়ার্ক

বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তের ভেতরে অন্তত এক কিলোমিটার পর্যন্ত এলাকায় মোবাইল নেটওয়ার্ক বন্ধের নির্দেশ দেওয়ার দুই দিনের মধ্যেই আবার সেটি চালু করতে বলেছে বাংলাদেশ টেলিযোগাযোগ নিয়ন্ত্রণ কমিশন (বিটিআরসি)।

আজ (১ জানুয়ারি) নেটওয়ার্ক পুনরায় চালুর নির্দেশনা দিয়ে দেশের চারটি মোবাইল ফোন অপারেটরকে একটি ইমেইল পাঠিয়েছে বিটিআরসি।

বিটিআরসি’র স্পেকট্রাম ম্যানেজমেন্ট বিভাগের উপ-পরিচালক মো. সোহেল রানার পাঠানো ইমেইলে, আগের চিঠির উদ্ধৃতি দিয়ে বলা হয়েছে সেই চিঠি বাতিল করা এবং অতি দ্রুততার সঙ্গে সীমান্ত এলাকায় মোবাইল চালু করতে বলা হলো।

মোবাইল ফোন অপারেটররা জানিয়েছেন, ইতোমধ্যে তারা নেটওয়ার্ক চালু করতে কাজ শুরু করেছেন। তবে নেটওয়ার্ক পুরো চালু হতে কিছুটা সময় লাগবে।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, সীমান্তের এক কিলোমিটারের মধ্যে নেটওয়ার্ক বন্ধ করার অন্তত এক কোটি গ্রাহক এতে ক্ষ’তিগ্রস্ত হয়েছেন।

সূত্রগুলো বলেছে, সীমান্তে চারটি অপারেটরের অন্তত দেড় হাজার মোবাইল টাওয়ার আছে। আর এর অনেকগুলোই রয়েছে দু’র্গম এলাকায়। তাছাড়া, এক কিলোমিটারের মধ্যে নেটওয়ার্ক বিচ্ছিন্ন করার ফলে অন্তত কয়েক কিলোমিটার জুড়ে নেটওয়ার্ক বি’চ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছিলো। সেসব এলাকায় গত দেড় দিন গ্রাহকরা কোনো রকম মোবাইল সেবা পাচ্ছিলেন না। একই সঙ্গে মোবাইল ফাইন্যান্সিয়াল সেবাও বন্ধ হয়ে গিয়েছিলো।

তবে সীমান্তে নেটওয়ার্ক বন্ধের কারণ বা দুই দিনের মাথায় তা প্রত্যাহারের বিষয়ে সরকারের তরফ থেকে কোনো স্পষ্ট ব্যাখ্যা দেয়া হয়নি।

নেটওয়ার্ক বন্ধের কারণ জানতে চাইলে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার সোমবার সাংবাদিকদের বলেছিলেন, নিরাপত্তার স্বার্থে সরকারের উচ্চ পর্যায়ের সিদ্ধান্তে বিটিআরসি এ নির্দেশনা দিয়েছে।

এদিকে নতুন নির্দেশনা আসার পর অপারেটর রবির চিফ করপোরেট অ্যান্ড রেগুলেটরি অফিসার সাহেদ আলম বলেন, বিটিআরসির নির্দেশনা অনুসারে আমরা ইতোমধ্যে সীমান্তবর্তী এলাকার বিটিএস সচল করার কাজ শুরু করেছি। যেহেতু এখানে অনেক বিটিএস জ’ড়িত, সবগুলো একই সময়ে চালু করতে হয়ত একটু সময় লাগতে পারে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন