মানিকের জন্ম থেকেই হাত নেই, জেএসসিতে জিপিএ ৫ পেয়েছে পা দিয়ে লিখে

প্রকাশিত: ডিসে ৩১, ২০১৯ / ০৭:২২অপরাহ্ণ
মানিকের জন্ম থেকেই হাত নেই, জেএসসিতে জিপিএ ৫ পেয়েছে পা দিয়ে লিখে

জন্ম থেকেই দুই হাত নেই। তারপরও সুস্থ ও স্বাভাবিক শিক্ষার্থীদের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় নেমে পা দিয়ে লিখেই জেএসসিতে জিপিএ ৫ পেয়েছে কুড়িগ্রামের ফুলবাড়ী উপজেলার শারীরিক প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থী মানিক রহমান।অদম্য মেধাবী মানিক রহমান এ বছর ফুলবাড়ী জছিমিঞা মডেল সরকারি উচ্চবিদ্যালয় থেকে জেএসসি পরীক্ষায় অংশ নেয়।

মঙ্গলবার দুপুরে ফলাফল প্রকাশিত হওয়ার পর মানিকের গোল্ডেন জিপিএ ৫ পাওয়ার খবর শুনে সবাই মুগ্ধ আনন্দিত। বাবা-মা ও শিক্ষক-শিক্ষিকমণ্ডলীর মুখ উজ্জ্বল করেছে মানিক রহমান।শারীরিক প্রতিবন্ধী মানিক রহমান উপজেলার সদর ইউনিয়নের চন্দ্রখানা গ্রামের ওষুধ ব্যবসায়ী মিজানুর রহমান ও মরিয়ম বেগমের ছেলে।

পিতা-মাতার বড় ছেলে মানিক রহমান জন্ম থেকেই শারীরিক প্রতিবন্ধী। জন্ম থেকেই তার দুটো হাত নেই, একটি পা অন্যটির চেয়ে অনেকাংশে খাটো। কিন্তু পড়াশোনায় কখনও পিছিয়ে যায়নি মানিক।শারীরিক প্রতিবন্ধকতা থাকলেও পিইসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫সহ ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি এবং সদ্য প্রকাশিত জেএসসির ফলাফলে গোল্ডেন জিপিএ ৫ পেয়েছে।

শুধু পা দিয়ে লেখাই নয়, পা দিয়ে মোবাইল চালানো এবং কথা বলাসহ কম্পিউটার টাইপিং ও ইন্টারনেট ব্যবহারেও পারদর্শী মানিক রহমান ভবিষ্যতে কম্পিউটার ইঞ্জিনিয়ার হয়ে বাবা-মায়ের স্বপ্ন পূরণ করতে চায়। ফুলবাড়ী জছিমিঞা মডেল সরকারি উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবেদ আলী খন্দকার জানান, শারীরিক প্রতিবন্ধী হওয়ার পরও মানিক রহমান অন্য শিক্ষার্থীদের চেয়ে ভালো ফলাফল করায় আমরা মুগ্ধ ও আনন্দিত। সে জীবনে অনেক বড় হোক এ দোয়া করি।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন