পিইসি-জেএসসির মাধ্যমে শিশু শিক্ষার্থীদের পরীক্ষাভীতি কমেছে : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত: ডিসে ৩১, ২০১৯ / ১১:৫৫পূর্বাহ্ণ
পিইসি-জেএসসির মাধ্যমে শিশু শিক্ষার্থীদের পরীক্ষাভীতি কমেছে : প্রধানমন্ত্রী

প্রাথমিক ও ইবতেদায়ি শিক্ষা সমাপনী (পিইসি) এবং জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট (জেএসসি) ও জুনিয়র দাখিল সার্টিফিকেট (জেডিসি) পরীক্ষার মাধ্যমে শিশু শিক্ষার্থীদের পরীক্ষাভীতি কমেছে বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, এসব সমাপনী পরীক্ষার ফলে শিশুদের আত্মবিশ্বাস বেড়েছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, ‘পঞ্চম শ্রেণিতে একটা পরীক্ষা দিয়ে সার্টিফিকেট পাচ্ছে, আবার অষ্টম শ্রেণিতে একটা সার্টিফিকেট পেলে তা বাঁধাই করে রাখলে ভালো লাগে। এসএসসি পরীক্ষা দিতে গেলে যে ভয়টা থাকে, আমরা পরীক্ষা দিতে গেলে অনুভব করতাম। এখন আগে থেকে পরীক্ষা দিয়ে তাদের আলাদা একটা আত্মবিশ্বাস থাকে।’

আজ মঙ্গলবার সকালে গণভবনে পঞ্চম ও অষ্টম শ্রেণির শিক্ষার্থীদের সমাপনী পরীক্ষার ফলাফলের অনুলিপি গ্রহণ শেষে বক্তৃতায় এসব কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রীর হাতে ফল হস্তান্তর করেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এবং প্রাথমিক ও গণশিক্ষা প্রতিমন্ত্রী মো. জাকির হোসেন। এ সময় ২০২০ সালে বিনামূল্যের পাঠ্যপুস্তক বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আরো বলেন, ‘সারা দিন বই পড়ে পড়ে সময় কাটানো না। সারাক্ষণ পড় পড় করলে মন খারাপ হয়ে যায়। শিক্ষকদের অভিভাবকদের বুঝতে হবে। যাতে বাচ্চারা মনের আনন্দে পড়াশোনা করে সে ব্যবস্থা করতে হবে।’

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘শুধু বই পড়া নয়, কারিগরি শিক্ষা ও খেলাধুলার প্রতি বিশেষ নজর দিতে হবে। বছরের প্রথম দিনে নতুন বই হাতে পাবে আমাদের ছোট্ট সোনামনিরা। সারা দেশের স্কুলে একযোগে বই উৎসব হবে।’

এ সময় শিক্ষার্থীদের ইংরেজি নববর্ষের শুভেচ্ছা জানান প্রধানমন্ত্রী।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘আমরা এখন যেটা করছি, শিক্ষার পাশাপাশি খেলাধুলার দিকে নজর দিয়েছি। প্রতিটি উপজেলায় একটি করে মিনি স্টেডিয়াম করে দিচ্ছি। প্রতি বছর ছেলেদের জন্য বঙ্গবন্ধু টুর্নামেন্ট আর মেয়েদের জন্য বঙ্গমাতা টুর্নামেন্টের ব্যবস্থা করা হয়। বিপুল পরিমাণ শিশু-কিশোর, ছাত্রছাত্রী এতে যুক্ত হচ্ছে। খেলাধুলা ছাড়াও সংস্কৃতি ইতিহাস বিষয়ে জানা এবং চর্চার ব্যবস্থা করছি।’

শেখ হাসিনা আরো বলেন, ‘স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু অনেক প্রাথমিক স্কুল সরকারি করে দেন। আমরা যেহেতু জাতির পিতা মেয়েদের শিক্ষাটা অবৈতনিক করেছিলেন, সেটা আমরা অব্যাহত রেখেছি।’

জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষা এ বছরের ২ নভেম্বর থেকে শুরু হয়। এ পরীক্ষায় মোট ২৬ লাখ ৬১ হাজার ৬৮২ জন শিক্ষার্থী অংশ নেয়। অপরদিকে প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষা শুরু হয় ১৭ নভেম্বর থেকে। এ পরীক্ষায় মোট অংশ নেয় ২৫ লাখ ৫৩ হাজার ২৬৭ জন শিক্ষার্থী। আজ এরা সবাই ফল পাবে।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন