ভূত তাড়ানোর বিদ্যা শেখানো হবে ভারতের বিশ্ববিদ্যালয়ে!

প্রকাশিত: ডিসে ২৯, ২০১৯ / ১১:২৩অপরাহ্ণ
ভূত তাড়ানোর বিদ্যা শেখানো হবে ভারতের বিশ্ববিদ্যালয়ে!

এবার আন্তর্জাতিক মানের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বেনারস হিন্দু বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ানো হবে একটি বিশেষ কোর্স, যার নাম ভূতবিদ্যা। ছয় মাসের কোর্স শেষে মিলবে সার্টিফিকেটও।

মূলত চিকিৎসকদের জন্যই থাকছে এই কোর্সটির সুযোগ। ভূত দেখেছেন বা ভূতে ভর করেছে বলে অনেকেই দাবি করে থাকেন। তাঁদের সঙ্গে কীভাবে ব্যবহার করা উচিত তাই শেখানো হবে এই বিশেষ কোর্সে। ক্লাস নেবেন বিশ্ববিদ্যালয়ের আয়ুর্বেদ বিষয়ক ফ্যাকাল্টিরাই।

বার্তা সংস্থা আইএএনএসের খবরে বলা হয়, অনেক ক্ষেত্রে মানুষের অস্বাভাবিক আচরণ ও মানসিক অবস্থার কারণ খুঁজে পান না মনোবিজ্ঞানীরা। এমন রোগীদের স্থানীয় লোকজন “ভূতে ধরা” বলে উল্লেখ করেন। এই রোগীদের শরীর থেকে “ভূত” তাড়ানোর কৌশলই শেখানো হবে বিশ্ববিদ্যালয়টিতে।

বেনারস হিন্দু ইউনিভার্সিটির আয়ুর্বেদিক ফ্যাকাল্টির অধীনে শুরু হচ্ছে “ভূতবিদ্যা” নামের কোর্সটি। সেখানে এ নিয়ে পড়াশোনা করবেন ব্যাচেলর অব আয়ুর্বেদিক মেডিসিন অ্যান্ড সার্জারি (বিএএমএস) এবং ব্যাচেলর অব মেডিসিন অ্যান্ড ব্যাচেলর অব সার্জারি (এমবিবিএস) চিকিৎসকরা।ভূতবিদ্যায় মূলত “ভূতে ধরার” কারণে অস্বাভাবিক মানসিক অবস্থার চিকিৎসার শিক্ষা দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়টির কর্তৃপক্ষ।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়টির আয়ুর্বেদিক ফ্যাকাল্টির ডিন যামিনী ভূষণ ত্রিপাঠি বলেন, “মানুষের শরীরে ভূত সংক্রান্ত উপসর্গের আয়ুর্বেদিক চিকিৎসা শেখানো হবে বিষয়টিতে।”ভারতে প্রথম বেনারস হিন্দু ইউনিভার্সিটিতে বিষয়টি চালু করা হয়েছে এবং সার্টিফিকেট দেওয়া হবে বলেও জানান যামিনী ভূষণ ত্রিপাঠি।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন