ফাইনালে খেলার চেষ্টা করব: ইমরুল কায়েস

প্রকাশিত: ডিসে ২৯, ২০১৯ / ১০:০১অপরাহ্ণ
ফাইনালে খেলার চেষ্টা করব: ইমরুল কায়েস

দুর্দান্ত ফর্মে রয়েছেন ইমরুল কায়েস। জাতীয় দলের এ টপঅর্ডার ব্যাটসম্যান চলতি বিপিএলে ধারাবাহিক রান করে শীর্ষ দুইয়ে রয়েছেন। তার নেতৃত্বাধীন চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্স পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে। একান্ত সাক্ষাৎকারে বিপিএল ও আসন্ন পাকিস্তান সফর নিয়ে খোলামেলা কথা বলেছেন ইমরুল কায়েস। তার সাক্ষাৎকারের চুম্বক অংশ তুলে ধরা হল।

প্রশ্ন: এবারের বিপিএল নিয়ে কিছু বলুন।

ইমরুল কায়েস: আলহামদুলিল্লাহ খুব ভালো যাচ্ছে। যে রিদমে আছি এভাবে শেষ করতে চাই।

প্রশ্ন: এই মুহূর্তে দুর্দান্তে ফর্মে রয়েছেন আপনি, বিপিএল কতটা উপভোগ করছেন?

ইমরুল কায়েস: ফর্মে থাকলে তো অবশ্যই ইনজয় করা হয়। ব্যাটিং ও ফিল্ডিং ভালো হচ্ছে। আমাদের টিম ম্যানেজমেন্ট, কোচিং স্টাফসহ সবাই খুবই ভালো। ধারাবাহিক পারফরম্যান্সের জন্য এটা অনেক ভালো কাজে দিচ্ছে।

প্রশ্ন: গত আসরে আপনার অধিনায়কত্বে শিরোপা জিতেছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স, এবারের আসরে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের নেতৃত্ব দিচ্ছেন…?

ইমরুল কায়েস: আমি যখনি দায়িত্ব পাই, আমি আমার মতো করে দল পরিচালনা করতে চেষ্টা করি। গত বছর স্টিভ স্মিথ থাকার সময়ও তিনি তার মতো করে দল পরিচালনা করেছেন। তিনি যাওয়ার পর আমি আমার মতো করে দল চালিয়েছি। আমাকে তামিম ইকবাল অনেক হেল্প করেছে। নিজে ব্যক্তিগতভাবে ভালো করার পর দলের পারফরম্যান্স যখন ভালো হয় তখন অধিনায়ক হিসেবে খুব ভালো লাগে।

প্রশ্ন: আপনার অধিনায়কত্বে চলতি বিপিএলে ৮ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে এখনও পর্যন্ত শীর্ষে রয়েছে চট্টগ্রাম। দলের ধারাবাহিক পারফরম্যান্স নিয়ে যদি কিছু বলেন?

ইমরুল কায়েস: বিপিএলের মতো এমন একটা টুর্নামেন্টে ভালো করতে হলে লোকাল ক্রিকেটারদের ভালো করতেই হবে। কারণ লোকাল ক্রিকেটারই বেশি খেলে। তারা যদি দলের হয়ে অবদান রাখতে না পারে তাহলে ফল আসবে না। আমাদের লোকাল ক্রিকেটাররা খুব ভালে করছে। দেশি ক্রিকেটারদের সঙ্গে বিদেশিরাও ভালো করছে। স্থানীয় ক্রিকেটাররা খুব রিদমে রয়েছে।

প্রশ্ন: অসাধারণ নেতৃত্ব দেয়ার পাশাপাশি ব্যক্তিগতভাবেও দুর্দান্ত খেলছেন। ৮ ম্যাচে তিন ফিফটির সাহায্যে ৪৮.১৬ গড়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৮৯ রান করেছেন। পারফরম্যান্সের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখাটা কতটা চ্যালেঞ্জিং?

ইমরুল কায়েস: বিপিএল একটি আন্তর্জাতিক মানের টুর্নামেন্ট। এখানে ভালো করলে বিশ্ব দেখে। যেভাবে পারফরম করছি এই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে চাই। বিপিএলে কত রান করেছি সেটা দেখার বিষয় নয়, যেভাবে শুরু করেছি সেভাবে শেষ করাই মূল টার্গেট। যখন আমার পারফরম্যান্সে দল জিতে তখন ভেতর থেকে খুব ভালো অনুভব হয়।

প্রশ্ন: এখনও পর্যন্ত সর্বোচ্চ রান সংগ্রহে সেরা দুইয়ে আপনি, চারে আপনার সতীর্থ চাদউইক ওয়ালটন, বোলিংয়েও শীর্ষে আপনার দলের তরুণ পেসার মেহেদী হাসান রানা। অধিনায়ক হিসেবে অন্যদের পারফরম্যান্স বের করে আনার পেছনের রহস্য বলবেন?

ইমরুল কায়েস: একজন অধিনায়ক হিসেবে আপনি যখন দলের সবাইকে স্বাধীনভাবে খেলার লাইসেন্স দিবেন তখন তারা মনখুলে খেলার রসদ পাবে। খেলা শেষে ওদের সঙ্গে খোশমেজাজে থাকি। ভালো-মন্দ শেয়ার করি। আর যদি তাদের ধারণা হয় বাজে খেললে বাদপড়ে যাবে তাহলে চেষ্টা করেও ভালো করতে পারবে না। কারণ বাদপড়ার আশঙ্কা নিয়ে ভালো খেলা সম্ভব না। আমাদের রানা (মেহেদী হাসান রানা) খুব ভালো করছে, ওকে আমি যথাযথ সুযোগ দেয়ার চেষ্টা করি।

প্রশ্ন: এবারের আসরে আপনার ব্যক্তিগত টার্গেট কী?

ইমরুল কায়েস: আসলে আমার কোনো ব্যক্তিগত টার্গেট নেই। টার্গেট নিয়ে কখনই কোনো টুর্নামেন্ট শুরু করি না। চেষ্টা থাকে নিজের সর্বোচ্চ উজার করে দেয়ার। এখন পর্যন্ত আমার একটাই লক্ষ্য যেভাবে বিপিএলটা শুরু করেছি সেভাবে শেষ করতে চাই। যেভাবে পারফরম করছি এর ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে চাই।

প্রশ্ন: বিপিএলে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সকে কোন পজিশনে দেখতে চান?

ইমরুল কায়েস: সত্যি কথা বললে চেষ্টা করব ফাইনালে খেলার। ফাইনালে খেললে চেষ্টা থাকবে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার। তবে চ্যাম্পিয়ন হতে হলে ভাগ্যেরও একটা ব্যাপার থাকে। চাইলেই চ্যাম্পিয়ন হওয়া যায় না। গ্রুপ পর্বে প্রথম হওয়া দলই যে চ্যাম্পিয়ন হবে এমন কোনো কথা নয়। নির্দিষ্ট দিনে যারা ভালো করবে তারাই শিরোপা জিতবে। ফাইনালে উঠলে আমাদের চেষ্টা থাকবে ভালো খেলার।

প্রশ্ন: ঘরোয়া লিগে অনেক খেলোয়াড় ভালো খেললেও জাতীয় দলে তারা তেমন নৈপুণ্য দেখাতে পারেন না- এর কারণ কী?

ইমরুল কায়েস: আসলে জাতীয় দলে খেললে অনেক চ্যালেঞ্জ থাকে। প্রত্যেকের মধ্যেই একটা আতঙ্ক কাজ করে, পারফর্ম করতে না পারলে বাদ পড়ে যাব। এই আশঙ্কায় সামর্থ থাকা সত্ত্বেও ভালো খেলা যায় না।

প্রশ্ন: জানুয়ারিতে তিনটি টি-টোয়েন্টি ও দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলতে পাকিস্তান সফরে যাওয়ার কথা রয়েছে বাংলাদেশ দলের। পাকিস্তান সফর নিয়ে কিছু বলুন?

ইমরুল কায়েস: বাংলাদেশ দল অনেক দিন পর পাকিস্তান সফরে যাচ্ছে। পাকিস্তানে যারা যাবে তাদের জন্য শুভকামনা থাকবে। তবে আমি কখনও পাকিস্তানের মাঠে খেলার সুযোগ পাইনি।

প্রশ্ন: যদি পাকিস্তান সফরের সুযোগ আসে যাবেন?

ইমরুল কায়েস: আসলে পাকিস্তান সফরে যাওয়ার বিষয়টি এখনই বলতে পারব না। এখানে পরিবারের বিষয় আছে। পরিবারের সদস্যরা যদি অনুমতি দেয়, ক্রিকেটাররা সবাই যদি যায় তাহলে ভেবে দেখব।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন