ফিলিফাইনে টাইফুনের আঘাত, নিহত ১৬

প্রকাশিত: ডিসে ২৬, ২০১৯ / ১১:১৮পূর্বাহ্ণ
ফিলিফাইনে টাইফুনের আঘাত, নিহত ১৬

ফিলিপাইনের মধ্যাঞ্চলে আঘাত হানা ঝড়ে কমপক্ষে ১৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার (২৬ ডিসেম্বর) দেশটির কর্তৃপক্ষের বরাতে এএফপি জানিয়েছে।

দেশটির দুযোর্গ সংস্থার কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বুধবার (২৫ ডিসেম্বর) ফিলিপাইন জুড়ে ঘণ্টায় ১৯৫ কিলোমিটার (১২০ মাইল) বাতাসের সাথে টাইফুন ফ্যানফোন’র আঘাতে ঘরের ছাদ উড়ে যায়, বৈদ্যুতিক পোস্টগুলি ভেঙে পড়ে।

কিছু কিছু এলাকায় ইন্টারনেট ও মোবাইল নেটওয়ার্ক পুরোপুরি বিচ্ছিন্ন হয়ে গিয়েছে। ফলে বৃহস্পতিবার সকালেও ক্ষয়ক্ষতির সম্পূর্ণ পরিসংখ্যান পাওয়া সম্ভব হয়নি। অনেক এলাকায় ফেরিসহ অন্যান্য পরিষেবা স্থগিত করা হয়েছে। তা এখনও পুরোপুরি সচল হয়নি।

দেশটির দুযোর্গ সংস্থার কর্মকর্তারা দেশটির কেন্দ্রীয় তৃতীয় ভিসায়াস এলাকায় অন্তত ১৬ জনের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এছাড়াও টাইফুন ফ্যানফোন বোরাসায়, করোনসহ বিভিন্ন পর্যটন এলাকায় আঘাত করে। ওই এলাকাগুলো তাদের সাদা বালুর সৈকতের জন্য বিখ্যাত এবং সেগুলো বিদেশি পর্যটকদের কাছে খুবই জনপ্রিয়।

কালিবোর এলাকায় অবস্থিত বিমানবন্দরটি মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। যেটি বোরাসায় এলাকায় যাতায়াতের জন্য ব্যবহার হয়। বিশেষত পর্যটকরাই যাতায়াত করেন। একজন কোরিয়ান পর্যটক যিনি সেখানে আটকা পড়েছিলেন, তিনি সেখান থেকে বিভিন্ন চিত্র সরবরাহ করেন।

কোরিয়ান ওই পর্যটক জঙ্গ বাইং জুন ইন্সটাগ্রামের মাধ্যমে জানান, টাইফুনের আঘাতে এলাকাটি খুব খারাপভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। রাস্তাগুলি অবরুদ্ধ হয়ে গিয়েছে, সেগুলো মেরামতের চেষ্টা করছে কর্তৃপক্ষ। বিমানবন্দরটি ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় সব ফ্লাইট বাতিল করা হয়েছে। সেখানে অনেক যাত্রী আটকা পড়ে হতাশা প্রকাশ করছে। রাস্তায় ট্যাক্সি চলছে, তবে বাতাস ও বৃষ্টি হওয়ায় বিমানবন্দর ছেড়ে কেউ যেতে চাচ্ছে না।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন