মুসলিমবি’রোধী নয় ভারতের নতুন নাগরিকত্ব আইনঃ মোদী

প্রকাশিত: ডিসে ২৩, ২০১৯ / ০১:০৫পূর্বাহ্ণ
মুসলিমবি’রোধী নয় ভারতের নতুন নাগরিকত্ব আইনঃ মোদী

ভারতে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন নিয়ে উ’ত্তা’ল বি’ক্ষো’ভ চলার মাঝে নীরব থাকার পর এবার প্রকাশ্য জনসভায় দেশবাসীকে ‘বৈচিত্র্যে’ সম্মান করা এবং ‘বিবিধের মধ্যে ঐক্যে’ বিশ্বাসের বার্তা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

বি’ক্ষো’ভের মধ্যেই দিল্লির নির্বাচনি প্রচারণায় অংশ নিয়েছেন মোদী৷ রাজধানী দিল্লির এই সমাবেশে তিনি বলেন, ‘‘এই আইন ১৩০ কোটি ভারতীয়র ওপর কোনো প্রভাব ফেলবে না৷ এবং আমি ভারতের মুসলিমদের আশ্বস্ত করতে চাই, এই আইন তাদের অবস্থানেও কোনো পরিবর্তন আনবে না৷’’

মুসলিমদেরকে আশ্বাস দিয়ে মোদী বলেন, “দেশের কোনও মুসলমানকে তাড়াতে এই আইন নয়। ধর্ম দেখে কাজ করি না। মুসলিমরা নিশ্চিন্ত থাকুন। আমি মানুষের অধিকার ছিনিয়ে নিচ্ছি, এ মিথ্য দাবি গ্রহণ মানুষ গ্রহণ করবে না।”

বি’রো’ধীদের একহাত নিয়ে মোদী বলেছেন, “মিথ্যা প্রচার করে বিরোধীরা বিশ্বের কাছে ভারতের ব’দ’নাম করার চেষ্টা চালাচ্ছে। ভারতের সংসদকে অস’ম্মা’ন করছে। যে মানুষেরা আফগানিস্তান, বাংলাদেশ ও পাকিস্তানে ধর্মের কারণে প্রতারিত, সেই শরণার্থীদের জন্য সিএএ।”

তার কথায়, “ভারতের কোনও নাগরিক, তা তিনি হিন্দু হোক বা মুসলমান, তাদের জন্য এ আইন নয়। এতে দেশের ১৩০ কোটির কোনও নাগরিকের উপর প্র’ভা’ব পড়বে না।”

কোথাও বিভাজের গ’ন্ধ আছে কিনা সে প্রশ্ন তুলে মোদী বি’রো’ধীদের চ্যা’লেঞ্জ জানিয়ে বলেন, থেকে থাকলে আপনারা তা দেশবাসীর সামনে আনুন। কোথাও কোনও বৈ’ষ’ম্য থাকলে আমি জবাব দেব।”

এর আগে গত সপ্তাহে পাস হওয়া এই আইনে প্রতিবেশি বাংলাদেশ, আফগানিস্তান ও পাকিস্তানের ধর্মীয় সংখ্যা’লঘুদের জন্য ভারতের নাগরিকত্ব আবেদনের প্রক্রিয়া সহজ করা হয়েছে৷ কিন্তু এই সংখ্যালঘুর তালিকা থেকে বাদ দেয়া হয়েছে মুসলিমদের৷ বি’ক্ষো’ভ’কারীরা পরদিনই ক্ষো’ভে ফেটে পড়েন৷ তাদের দাবি, এই আইন ভারতের অসাম্প্রদায়িক সংবিধানের সঙ্গে সাং’ঘ’র্ষিক৷

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন