মুসলিমরা নামাজ থামিয়ে হিন্দুদের মন্দিরে যাওয়ার পথ করে দিয়ে নজির গড়ল

প্রকাশিত: ডিসে ২৩, ২০১৯ / ১২:৪০পূর্বাহ্ণ
মুসলিমরা নামাজ থামিয়ে হিন্দুদের মন্দিরে যাওয়ার পথ করে দিয়ে নজির গড়ল

বিত’র্কিত নাগরিত্ব বিলের প্রতিবাদে উত্তা’ল গোটা ভারত। প্রতি মুহূর্তে সহিংসতার খবর আসছে দেশের বিভিন্ন রাজ্য থেকে। ইতিমধ্যে পুলিশের গু’লিতে প্রা’ণ হারিয়েছেন প্রায় ৩০ জনের মতো।

এমন পরিস্থিতিতে নাগরিকত্ব সংশোধিত আইনের বিরু’দ্ধে এক বি’ক্ষো’ভ সমাবেশই হয়ে উঠল সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির নজির। ভগবান আয়াপ্পার শবরীমালা মন্দিরে যাতে ভক্তরা নি’র্বিঘ্নে যেতে পারেন, সে জন্য মুসলিম বিক্ষোভকারীরা নামাজ পড়া বন্ধ করে রাস্তা করে দিয়েছেন।

শুক্রবার তামিলনাড়ুর কোয়েম্বাটুর এলাকায় সম্প্রীতির এমন নজিরই স্থাপন হয়েছে বলে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম নিউজ এইটিন জানিয়েছে।

খবরে বলা হয়, এদিন নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে কোয়েম্বাটুরে অল জামাত অ্যান্ড ইসলাম অর্গানাইজেশনের সমাবেশে ১৫ হাজার মানুষ ছিলেন। পল্লাকাড়-পোল্লাচি রাস্তায় চলছিল বি’ক্ষো’ভ। সন্ধ্যায় সূর্য ডোবার পরেই বি’ক্ষো’ভকারীরা নামাজ পড়া শুরু করেন।

মুসলিম বি’ক্ষো’ভকারীরা সন্ধ্যায় বি’ক্ষো’ভ চলাকালীনই নমাজ পড়ছিলেন। এসময় চারজন আয়াপ্পা ভক্ত ওই ভিড়ের মধ্যে দিয়ে ‘ইড়ুমুড়ি’ নিয়ে যাচ্ছিলেন। নামাজের ভিড়ে তাদের যেতে অসুবিধা হওয়ায় তারা অপেক্ষা করছিলেন যাওয়ার জন্য।

ওই ঘটনার একটি ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ছড়িয়ে পড়ে। যাতে দেখা যায়, আয়াপ্পা ভক্তদের দেখেই নামাজ থামিয়ে দেন বি’ক্ষো’ভকারীরা। চার আয়াপ্পা ভক্ত যাতে নির্বিঘ্নে শবরীমালা মন্দিরে যেতে পারেন, সে ব্যবস্থা করে দেন তারা।

বি’ত’র্কিত ধর্মভিত্তিক নাগরিকত্ব আইন এবং জাতীয় নাগরিকপঞ্জি নিয়ে গত তিন ধরে পরিস্থিতি অগ্নি’গর্ভ উত্তরপ্রদেশসহ গোটা ভারত।

পুলিশের গু’লিতে এখনও পর্যন্ত ৩০ জন প্রাণ হারিয়েছেন। তামিলনাড়ুতেও চলছে সেই বিক্ষোভ। ইতিমধ্যে সাড়ে ৪ হাজার বি’ক্ষো’ভকারীকে আ’ট’ক করা হয়েছে।

শুধু উত্তরপ্রদেশেই নিহত হয়েছেন ১৬ জন।যার মধ্যে রয়েছে ৮ বছরের শিশুও। এমন পরিস্থিতিতে মন ভালো করা সম্প্রীতির নজির দেখালেন কোয়েম্বাটুরের মুসলিমরা।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন