নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন মানেই জনমতের সংখ্যাগরিষ্ঠতা নয় : প্রণব মুখার্জি

প্রকাশিত: ডিসে ১৭, ২০১৯ / ০৯:৫২পূর্বাহ্ণ
নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন মানেই জনমতের সংখ্যাগরিষ্ঠতা নয় : প্রণব মুখার্জি

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে গোটা ভারতে যখন তোলপাড় চলছে, তখন তাৎপর্যপূর্ণ এক মন্তব্য করলেন দেশটির সাবেক রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখার্জি। তিনি গতকাল সোমবার বলেন, ‘নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে কেউ স্থায়ী সরকার গঠন করতে পারে। কিন্তু তার মানেই যে সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষের মত তার পক্ষে রয়েছে, এমন নয়। তাই নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন মানেই সংখ্যাগরিষ্ঠের সরকার নয়। এটাই আমাদের সংসদীয় গণতন্ত্রের মূল কথা।’

ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী অটল বিহারি বাজপেয়ি স্মরণে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে গতকাল সোমবার প্রধান বক্তা ছিলেন প্রণব মুখার্জি। বাজপেয়ির স্মৃতিচারণ করার পাশাপাশি সংসদীয় গণতন্ত্রের ভবিষ্যৎ নিয়েও কথা বলেন তিনি। এ সময় নিজের পর্যবেক্ষণ তুলে ধরেন প্রণব মুখার্জি। ভারতীয় সংবাদমাধ্যম দ্য ওয়াল এ খবর জানিয়েছে।

নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করা সরকার কেন সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগণের সরকার নয়, তা ব্যাখ্যাও করেন ভারতের এই সাবেক রাষ্ট্রপতি। প্রণব মুখার্জি বলেন, ভারতে কখনোই কোনো দল বা ব্যক্তি ৫১ শতাংশ ভোটারের ভোট পেয়ে ক্ষমতায় আসেনি। ১৯৫২ সাল থেকে ২০১৯ পর্যন্ত কখনোই এমন নজির নেই। পণ্ডিত জওহরলাল নেহরু ১৯৫৭ সালে ৪৮০টির মধ্যে ৩৭১টি আসনে জিতে সরকার গড়েছিলেন। কিন্তু তিনি ৪৭.৭৮ শতাংশ ভোট পেয়েছিলেন। ১৯৮৪ সালের নির্বাচনে রাজীব গান্ধী ৫১৪টির মধ্যে ৪০৪টি আসনে জিতলেও ৫১ শতাংশ ভোট তিনিও পাননি।

২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের প্রসঙ্গ অবশ্য প্রণব মুখার্জি তোলেননি। গত লোকসভা নির্বাচনে নরেন্দ্র মোদির দল বিজেপি তিনশর বেশি আসনে জিতলেও ৩৮ শতাংশ ভোট পেয়েছে।

প্রণব মুখার্জি বলেন, নির্বাচনে সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জনের অর্থ হলো জনগণ কোনো দলকে দেশ শাসনের সুযোগ দিচ্ছে ঠিকই, কিন্তু এটাও বুঝিয়ে দিচ্ছে ওই সরকারকে সবাইকে সঙ্গে নিয়ে চলতে হবে। প্রণব মুখার্জি আরো বলেন, যতবার ভারতের সরকার এই ব্যাপারটি মেনে চলেনি, ততবারই সে দেশের মানুষ তাদের শাস্তি দিয়েছে। দুর্ভাগ্যের বিষয় হলো, এর পরও রাজনীতিকরা অনেকেই শিক্ষা নেননি। তাঁরা মনে করেন, মানুষ যখন তাঁদের সরকার গঠন করার অধিকার দিয়েছে, তখন তাঁরা যা ইচ্ছা তাই করতে পারেন। কিন্তু বাস্তবতা কিন্তু তা নয়।

প্রণব মুখার্জির এমন মন্তব্য ভারতের ক্ষমতাসীন সরকার ও দলের প্রতি বলেই অনেকে মনে করছেন। প্রণব মুখার্জি এদিন আরো বলেন, ভারতের মানুষ দীর্ঘসময় ধরে ধর্মান্ধতা মেনে নেয় না।

ভিডিওটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন