ভারতীয় কিশোরীকে ধর্ষণ করল বাংলাদেশি সাধু

মানসিক অসুস্থতা থেকে মুক্তি পেতে সাধু ফকিরের কাছে গিয়ে ধ’র্ষ’ণের শি’কা’র হয়েছে এক কিশোরী। খবর ভারতীয় গণমাধ্যম এই সময়’র।
অ’ভি’যুক্ত সাধু শেখর রায় বাংলাদেশি নাগরিক বলেও জানায় ভুক্তভোগী কিশোরীর বাবা-মা ও প্রতিবেশীরা। জানা যায়, ১০ বছর ধরে মানসিক রোগে আ’ক্রা’ন্ত কন্যাকে সুস্থ করে তুলতে কলকাতার অদূরে মহেশতলায় সাধু শেখরের কাছে নিয়ে যায় কিশোরীর বাবা-মা। সেখানে সাধু বাবার কথামতো কিশোরীকে রেখে আসলে তাকে ধ’র্ষ’ণ করে সেই সাধু। কিশোরীর বাবা-মা জানায় এক প্রতিবেশীর মাধ্যমে তাদের পরিচয় হয় বাংলাদেশি সাধু শেখর রায়ের সাথে। শেখর নিজ এলাকায় পাগল হিসেবে পরিচিত।

কিশোরীকে মাঝরাতে ঝাড়-ফুঁক করতে হবে এজন্য তিন রাত সাধুর সাথে থাকতে হবে বলে বাবা-মাকে ফেরত পাঠিয়ে দেয় সাধু শেখর। এরপর পরপর দুই রাত তাকে ধ’র্ষ’ণ করে শেখর রায়। তৃতীয় দিন তাকে আবার শেখরের আস্তানায় পাঠাতে গেলে কান্না করে দেয় কিশোরী এবং বাবা-মাকে জানায় ধ’র্ষ’ণের ঘটনা। পরবর্তীতে, বৃহস্পতিবার সেই প্রতিবেশীকে সাথে নিয়ে শেখরের আস্তানায় গিয়ে দেখা যায় সে তার স্ত্রীকে নিয়ে পা’লি’য়ে গিয়েছে। এরপর স্থানীয়রা ঐ প্রতিবেশীকে মা’র’ধ’র করে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওই প্রতিবেশীকে আ”টক করেছে পুলিশ। অ’ভি’যুক্তের খোঁজে চলছে ত’ল্লা’শি।

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত