আদিবা তার মা-বাবার কাছ থেকে হা’রিয়ে গেছে

মা-বাবার সঙ্গে চট্টগ্রাম যাচ্ছিল আড়াই বছর বয়সী আদিবা আক্তার সোহা। কিন্তু হঠাৎই যেন তাদের কাছ থেকে ফাঁকি দিয়ে চলে গেছে না ফেরার দেশে। মঙ্গলবার ভোর রাতে ট্রেন দু’র্ঘটনায় মা’রা গেছে সে। মেয়ের লা’শ পড়ে ছিল ব্রাহ্মণবাড়িয়ার হাসপাতালে আর আ’হ’ত হয়ে মা-বাবা কাতরাচ্ছিলেন ঢাকার হাসপাতালে। মেয়ের মৃত্যুর খবরে নিজেদের ব্য’থা যেন গায়ে লাগছিল না তাদের। বারবারই সন্তানের কথা জানতে চাচ্ছিলেন। কোথায় পড়ে আছে তার লা’শ। দেখতে পাগল হয়ে গিয়েছিলেন।

নি’হ’ত সোহার বাবা বানিয়াচং উপজেলার তাম্বুলিটুলা গ্রামের সোহেল মিয়া জানান, তিনি ও তার স্ত্রী নাজমা বেগম চট্টগ্রামের একটি কোম্পানিতে চাকরি করেন। বৃহস্পতিবার তারা বাড়ি আসেন। সোমবার স্ত্রী ও ২ সন্তানকে নিয়ে কর্মস্থলের উদ্দেশে রওয়ানা হন। পথে ট্রেন দু’র্ঘ’টনায় আড়াই বছর বয়সী একমাত্র মেয়ে আদিবা আক্তার সোহা মা’রা যায়।

এ ঘটনায় আ’হ’ত হন সোহেল মিয়া, তার স্ত্রী ও সাড়ে ৪ বছর বয়সী ছেলে নাছির। তারা এখন ঢাকায় চিকিৎসাধীন রয়েছেন। মেয়ের মৃ’ত্যু’তে নি’র্বাক হয়ে পড়েছেন নি’হ’ত সোহার মা-বাবা। কথা বলতে গিয়ে তিনি কা’ন্নায় ভেঙ্গে পড়েন। বারবারই জানতে চান মেয়ে কোথায় পড়ে আছে। তার লা’শ কোথায়। দেখতে চান তিনি।

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত