নায়িকা মৌসুমীর জন্মদিন আজ

তিনি ঢাকাই সিনেমার উজ্জ্বল নক্ষত্র। বহুমাত্রিক চরিত্রে তিনি আলো ছড়িয়েছেন রুপালি পর্দায়। সেই ১৯৯৪ সালে তার যাত্রা সালমান শাহের বিপরীতে ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ ছবি দিয়ে। প্রথম ছবিই তাকে তারকাখ্যাতি এনে দিয়েছিলো। তারপর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। একের পর সুপারহিট ও প্রশংসিত চলচ্চিত্রে অভিনয় করে নিজের নিয়ে গেছেন অনন্য উচ্চতায়। তিনি ঢকাই সিনেমার প্রিয়দর্শিনী মৌসুমী। আজ এই চিত্রনায়িকার জন্মদিন। ৩ নভেম্বর থেকে শুরু হলো তার ৪৬ বছরের যাত্রা।

মৌসুমী জানান, তার এবারের জন্মদিনের প্রথম প্রহর কেটেছে নরসিংদীর হেরিটেজ রিসোর্টে। সেখানে পরিবারের সঙ্গে মধ্যে রাতেই জন্মদিনের কেক কেটেছেন এই তিনি। এছাড়া জন্মদিনের পরিকল্পনায় মৌসুমী জানান, আজ তিনটি এতিমখানার বাচ্চাদের খাওয়ানো হবে। সেখানে মিলাদ মাহফিল ও দোয়া অনুষ্ঠিত হবে। তার পরিকল্পনা অনুযায়ী সব গুছিয়ে নিচ্ছেন স্বামী ওমর সানী ও পুত্র ফারদিন।

অন্যদিকে প্রতিবারের মত এবারও মৌসুমীর ফ্যান ক্লাবের আয়োজনেও পালন করা হবে মৌসুমীর জন্মদিন। তবে এবার সেই আয়োজনে যোগ দিচ্ছেন ওমর সানী ফ্যান ক্লাবও। বেশ জমকালো আয়োজনেই প্রিয় নায়িকার জন্য এক হবেন সবাই। পাশাপাশি আজ সন্ধ্যায় ঢাকায় এক রেস্তোরাঁয় আয়োজন করা হয়েছে বিশেষ একটি অনুষ্ঠানের। যেখানে উপস্থিত থাকবেন মৌসুমীর কাছের মানুষরা।

প্রসঙ্গত, মৌসুমী নামে খ্যাত হলেও নায়িকার পুরো নাম আরিফা পারভিন জামান মৌসুমী। ১৯৭৩ সালে আজকের দিনে খুলনা জেলায় জন্মগ্রহণ করেন তিনি। ১৯৯৩ সালে সোহানুর রহমান সোহান পরিচালিত ‘কেয়ামত থেকে কেয়ামত’ সিনেমায় চুক্তিবদ্ধ হন। সেই ছবিটি মুক্তি পায় ১৯৯৪ সালে।

দীর্ঘ ক্যারিয়ার সালমানকে দিয়ে শুরু করেছিলেন মৌসুমী। এরপর ওমর সানী, ইলিয়াস কাঞ্চন, বাপ্পারাজ, জাহিদ হাসান, অমিত হাসান, রুবেল, মান্না, আমিন খান, ফেরদৌস, রিয়াজ, শাকিল খান ও শাকিব খানসহ ঢাকাই সিনেমার জনপ্রিয় সব নায়কদের বিপরীতে কাজ করে সাফল্য পেয়েছেন। সিনেমার পাশাপাশি টিভি নাটক ও বিজ্ঞাপনেও সফল নাম মৌসুমী।

অভিনয়ের পাশাপাশি একজন নির্মাতা হিসেবেও আত্মপ্রকাশ ঘটেছে মৌসুমীর। নির্মাণেও তিনি নিজের নামের সৌরভ ছড়িয়েছেন। একজীবনে অনেক পুরস্কার ও স্বীকৃতি তিনি অর্জন করেছেন। ইউনিসেফের শুভেচ্ছাদূত হিসেবে তিনি দায়িত্ব পালন করছেন ২০১৩ সাল থেকে। কোটি মানুষের ভালোবাসা তার কাছে সবচেয়ে বড় অর্জন বলে মনে হয়। আর রাষ্ট্র তাকে কাজের স্বীকৃতি হিসেবে তিনবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার প্রদান করেছে।

মৌসুমী ‘মেঘলা আকাশ’ সিনেমার জন্য ২০০১ সালে প্রথম এই পুরস্কার হাতে নেন। এরপর ২০১৩ সালে ‘দেবদাস’ ও ২০১৪ সালে ‘তারকাঁটা’ ছবির জন্য সেরা অভিনেত্রী বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার জিতে নেন। মৌসুমী ভালোবেসে বিয়ে করেছেন চিত্রনায়ক ওমর সানীকে। তাদের সুখের দাম্পত্যে আলো ছড়িয়ে রেখেছে পুত্র ফারদিন ও কন্যা ফাইজা।

শোবিজের পাশাপাশি মৌসুমী যেমন ব্যক্তিত্ব ও রুচিতে আকর্ষণীয় তেমনি তার রয়েছে মানবিক হৃদয়। সেই হৃদয়ের সৌজন্যে বিভিন্ন সময় নানারকম সামাজিক কার্যক্রমে জড়িত হতে দেখা যায় তাকে। তিনি পরিচালনা করেন ‘মৌসুমী ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশন’। এর মাধ্যমে থেকে বঞ্চিত মানুষ ও শিশুদের উন্নয়নে নানা ভূমিকা পালন করেন প্রিয়দর্শিনী মৌসুমী।

প্রিয় পাঠক, আপনার মূল্যবান শেয়ার / মতামতের এর জন্য ধন্যবাদ।

পাঠকের মতামত